এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > বাংলার উন্নয়নে মমতার ভরসা কন্যাশ্রীর জয়গান! নবীনে-প্রবীনে নতুন রসায়নে দিলেন চূড়ান্ত চমক

বাংলার উন্নয়নে মমতার ভরসা কন্যাশ্রীর জয়গান! নবীনে-প্রবীনে নতুন রসায়নে দিলেন চূড়ান্ত চমক



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বক্তব্য রাখতে গিয়ে মাঝেমধ্যেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “না থাকিলে বঙ্গ ললনা, এই ভারত জাগে না জাগে না।” অর্থাৎ নারী শক্তির ওপর ভর করে বারবার বৈতরণী পার হওয়ার চেষ্টা করেছেন তৃণমূল নেত্রী। এক্ষেত্রে দুই দুইবার সরকার পরিচালনা করার ক্ষেত্রে নারী শক্তির জন্য একাধিক প্রকল্প রূপায়ণ করতে দেখা গেছে তৃণমূল সরকারকে। কন্যাশ্রী থেকে শুরু করে রুপশ্রী, এমনকি 2021 সালের বিধানসভা নির্বাচনের বেশিরভাগ আসনে মহিলা প্রার্থী দিয়ে রীতিমত মাস্টারস্ট্রোক দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আর বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় আসার পরেও, নারীশক্তির আধিক্য দেখা গেল রাজ্য মন্ত্রিসভায়। মূলত মুখ্যমন্ত্রী বাদ দিয়ে 43 জন মন্ত্রী রয়েছেন এবারের রাজ্য মন্ত্রিসভায়। যেখানে একজন মহিলা পূর্ণমন্ত্রী, তিনজন মহিলা স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী এবং চারজন মহিলা প্রতিমন্ত্রী পদে রয়েছেন। চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য থেকে শুরু করে শশী পাঁজা, সন্ধ্যারানী টুডু থেকে শুরু করে রত্না দে নাগ, গুরুত্বপূর্ণ এই সমস্ত প্রমিলা বাহিনীকে নিজের মন্ত্রিসভায় জায়গা দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এছাড়াও শিউলি শাহা, সাঁওতালি চলচ্চিত্রের অভিনেত্রী বীরবাহা হাসদা, জ্যোৎস্না মান্ডি এবং সাবিনা ইয়াসমিনকেও রাজ্য মন্ত্রিসভায় জায়গা দেওয়া হয়েছে। একাংশ বলছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এক্ষেত্রে সামঞ্জস্য বজায় রাখার চেষ্টা করেছেন। শুধুমাত্র পুরুষ মন্ত্রী নয়, মহিলা মন্ত্রীদের আধিক্য রেখে নারীশক্তি প্রতিনিধিত্ব করতে তাঁর মন্ত্রিসভার যে যথেষ্ট কদর রয়েছে, তা বুঝিয়ে দিতে চেয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

নিজের কথা মত মা-বোনেদের শক্তির প্রতিধ্বনি যাতে তার মন্ত্রিসভাতেও ফুটে ওঠে, তার ছাপ রাখার চেষ্টা করেছেন তিনি। এক্ষেত্রে দ্বিতীয় তৃণমূল সরকারের আমলে মন্ত্রী পদের দায়িত্বে থাকা চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য এবং শশী পাঁজাকে আবার দায়িত্ব দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তেমনই একাধিক নতুন মুখ এবং অভিজ্ঞতা সম্পন্ন মহিলা নেত্রীকে রাজ্য মন্ত্রিসভায় সংযুক্ত করেছেন তিনি।

বিশ্লেষকরা বলছেন, এবারের নির্বাচনী প্রচারে বারবার মা-বোনেদের এগিয়ে আসার কথা বলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকি ভোটের ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর মা-বোনেদের বিপুল সমর্থন তাকে বাড়তি শক্তি যুগিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তৃণমূল নেত্রী। অর্থাৎ এবারের নির্বাচনে মহিলাদের সমর্থন যে তাকে ক্ষমতা দখল করতে অনেকটাই পথ প্রশস্ত করেছে, তা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য থেকেই পরিষ্কার।

তাই মন্ত্রিসভা গঠন এবং সেই নারীশক্তিকে সম্মান জানানোর জন্য একাধিক মহিলা মুখকে জায়গা দিলেন বাংলার প্রশাসনিক প্রধান। সব মিলিয়ে নারী শক্তির আধিক্য রেখে চমকপ্রদ মন্ত্রিসভা গঠন করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে যে সমস্ত দপ্তর মহিলা নেত্রীদের কাঁধে অর্পণ করেছেন তিনি, সেই সমস্ত দায়িত্ব সামলাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রমিলা বাহিনী কতটা সক্ষম হন, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!