এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বাংলায় লোকাল ট্রেন শুরু হওয়া শুধু সময়ের অপেক্ষা? রাজ্য সরকারের নতুন পদক্ষেপে তুমুল জল্পনা

বাংলায় লোকাল ট্রেন শুরু হওয়া শুধু সময়ের অপেক্ষা? রাজ্য সরকারের নতুন পদক্ষেপে তুমুল জল্পনা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – করোনা সংক্রমনের কারণে গত মার্চ মাসের শেষ দিক থেকে দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছিল, এখন চলছে যার আনলক বা নিউ নরমাল পর্ব। এই পর্বে বিভিন্ন রকম পরিষেবা চালু করা হয়েছে। বিমান পরিষেবা, মেট্রো পরিষেবা চালু হয়েছে, কিন্তু এখনো বন্ধ আছে লোকাল ট্রেন পরিষেবা। এ কারণে ক্ষোভ বাড়ছে নিত্যযাত্রী সহ বিভিন্ন মানুষের। এবার লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করতে বিশেষ উদ্যোগ নিতে দেখা গেল রাজ্য সরকারকে। ইতিপূর্বে, লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করার বিষয়ে রাজ্য সরকারকে চিঠি দিয়ে রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চেয়েছিল রেল। গতকাল শনিবার রাজ্যের পক্ষ থেকে পূর্ব রেলের জেনারেল ম্যানেজারকে চিঠি দিয়ে জানানো হলো যে, সমস্ত রকম স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকালে ও বিকালে লোকাল ট্রেন চালু করতে ইচ্ছুক রাজ্য।

লোকাল ট্রেন পরিষেবা বন্ধ থাকায় নিত্য যাত্রীদের একটি বড় অংশকে তীব্র সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। অনেক সময় রেলের স্টাফ স্পেশ্যাল ট্রেনে উঠে পড়েছেন বেশকিছু নিত্যযাত্রী। যা নিয়ে প্রায়শই সমস্যা বাড়ছে। গতকাল হাওড়া স্টেশনে স্টাফ স্পেশাল ট্রেনের কিছু যাত্রীর ওঠাকে কেন্দ্র করে যাত্রী ও রেল পুলিশের মত বচসা শুরু হয়। যা থেকে বাধে মারামারি-হাতাহাতি। শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাবার উপক্রম হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রেলপুলিশ লাঠি চালায়। গতকালের এই ঘটনার পর রেলকে চিঠি দিয়ে লোকাল ট্রেন চালু করার বিষয়ে আলোচনা করার কথা জানাল রাজ্য সরকার।

রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, সমস্ত রকম করোনা বিধি তথা স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে পালন করলেই তবে লোকাল ট্রেন চালানোর বিষয়ে সবুজ সঙ্কেত দিতে পারে রাজ্য সরকার। রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় গতকাল জানালেন যে, যেভাবে নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে, যাত্রী নিয়ন্ত্রণ করে মেট্রো পরিষেবা চালু করা হয়েছে। সে রকম নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করা যেতে পারে। এ বিষয়ে একটি চিঠি দেয়া হয়েছে পূর্ব রেলের জিএমের কাছে।

আবার, লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করার আগে থেকেই এ বিষয়ে বেশকিছু প্রস্তুতি নিয়েছে রেল। বিভিন্ন স্টেশনে যাত্রীদের জন্য গোল দাগ কাটা হয়েছে, ট্রেনে ওঠার সময় যাতে ধাক্কাধাক্কি না হয় সেদিকেও ভাবা হচ্ছে। আবার টিকিট কাউন্টারের সামনে দাঁড়াতে বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে। গতকাল রাতে রেলের জনৈক কর্তা জানালেন যে, রাজ্যের চিঠি তারা পেয়েছেন। দু’পক্ষের আলোচনার পর লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে, রাজ্যের তরফ থেকে পূর্ব রেলের জেনারেল ম্যানেজারকে চিঠি দিয়ে জানানো হলো যে, সমস্ত রকম করোনা বিধি মেনে সকালে ও বিকেলে লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করা সম্ভব। চিঠিতে লোকাল ট্রেন দীর্ঘ সময় ধরে বন্ধ থাকার কারণে নিত্যযাত্রীদের কষ্টের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। চিঠিতে জানানো হয়েছে, রেলের কর্মীদের জন্য স্পেশাল ট্রেন চালানো হলেও, রাজ্যের অন্যান্য সরকারি কর্মচারী ও সাধারণ মানুষদের জন্য রেল পরিষেবার ব্যবস্থা করা হয়নি। কিন্তু রাজ্যের অন্যান্য পরিবহন ব্যবস্থা চালু হয়ে গেছে। বিমান পরিষেবা, মেট্রো পরিষেবা চালু হলেও বন্ধ আছে লোকাল ট্রেন পরিষেবা।
এর সঙ্গে সঙ্গেই গতকাল হাওড়া স্টেশনে নিত্যযাত্রীদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জের ঘটনা ও যাত্রীদের প্রতি রেল পুলিশের খারাপ ব্যবহার নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেছে রাজ্য সরকার।

সকলে আশা করছেন যে, লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করার বিষয়ে রাজ্যের সঙ্গে এবার আলোচনায় বসতে চলেছে রেল। উভয়ের আলোচনার পরেই লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালুর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে, চাকা ঘুৱে লোকাল ট্রেনের। আবার, হাওড়া, শিয়ালদহ লোকাল ট্রেনে কয়েক লক্ষ নিত্য যাত্রী প্রতিদিন যাতায়াত করেন। লোকাল ট্রেন চালু হলে তারা যেমন উপকৃত হবেন, তেমনই স্টেশনে স্টেশনে হকারি করা ব্যবসায়ীদেরও জীবিকার ব্যবস্থা হবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!