এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বনধ বিরোধিতায় তৃণমূল – সারদা-নারদ আর মোদী-দিদি সেটিং নিয়ে তীব্র আক্রমন বাম-কংগ্রেসের

বনধ বিরোধিতায় তৃণমূল – সারদা-নারদ আর মোদী-দিদি সেটিং নিয়ে তীব্র আক্রমন বাম-কংগ্রেসের



পেট্রোপণের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদের ডাকা কেন্দ্র বিরোধী বনধ সমর্থন করেনি তৃণমূল কংগ্রেস। বরং বনধ ব্যর্থ করতেই গতকাল রাস্তায় নেমেছিল তাঁরা। কারণ সারদা নারদা দুর্নীতিকান্ডে কেন্দ্রের সঙ্গে যোগসূত্র রয়েছে রাজ্যসরকারের। আসলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রকে কাল সমর্থনেরই বার্তা দিলেন। এমনটাই ধর্মঘটের প্রেক্ষিতে দাবী করল বাম-কংগ্রেসশিবির। বনধ নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দ্বিচারী আচরণ করেছেন। কেন্দ্রের বিভিন্ন জনবিরোধী নীতির কারণে আমজনতা ভুক্তভোগী,বিপন্নতায় ভুগছে তাঁরা। এরকম পরিস্থিতিতে কেন্দ্র বিরোধী বিরোধীদের ডাকা বনধকে সমর্থন না করে কার্যত দ্বিচারিতারই নজির তুলে ধরলেন। মুখে বিজেপি বিরোধীতার কথা বললেও আসলে বিজেপিকেই সমর্থন করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনটাই দাবীতে জানালো দুই বিরোধীপক্ষ।

এদিন রাজ্যসরকারের তরফ থেকে বনধকে ব্যর্থ করার যাবতীয় চেষ্টা করা হলেও রাজ্যের নানা প্রান্তে ধর্মঘটের ভালোই প্রভাব পড়েছে। মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত উদ্যোগেই বনধ সফল হয়েছে। দাবী বিরোধীদের। কোলকাতা সহ বিভিন্ন জেলার বনধ সমর্থনকারীদের সঙ্গে পুলিশ এবং তৃণমূলের সদস্যদের হাতাহাতি,ধস্তাধস্তিও হয়। হামলার শিকার হন ধর্মঘটীরা। শুধু তাই নয়,কয়েকশো বাম-কংগ্রেস কর্মীদের গ্রেফতারও করা হয়েছে বনধ কর্মসূচি করার অপরাধে। বাম শিবিরের তরফর দুই হেভিওয়েট নেতা বিমান বসু এবং সূর্যকান্ত মিশ্র বক্তব্যে জানান,কোচবিহার সহ বেশ কয়েকটি জায়গায় বেনজির ভাবে কংগ্রেসের সভামঞ্চে তৃণমূল প্রতিনিধিদের দেখা গিয়েছে। এ কথা জানিয়েই তাঁরা পাল্টা প্রশ্ন তোলেন তৃণমূল তাহলে কার হাত ধরতে চাইছে? কংগ্রেস না বিজেপি?

রাজ্যে তাঁরা বিরোধীদের ডাকা ধর্মঘটের বিরোধীতা করছে,অথচ দিল্লিতে ধর্মঘটের সমর্থনে বিরোধীদের সমাবেশে তৃণমূল প্রতিনিধি পাঠাচ্ছে। এই যুক্তি তুলে ধরে বাম-কংগ্রেস শিবির দাবীতে জানিয়ে দিল,আসলে মোদীজীকেই অঘোষিত বন্ধু করে রেখেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি সরকারকে সমর্থন করার সবুজ সংকেত এভাবেই দিল তৃণমূল কংগ্রেস। এরসঙ্গে যুক্তিতে আরো জানানো হল,আসলে মোদী সরকারের সঙ্গে টিকি বাঁধা রয়েছে তৃণমূলের সারদা-নারদার মতো নানা দুর্নীতি কান্ডের।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

বামেদের পাশাপাশি তৃণমূল বিরুদ্ধে তোপ দাগতে দেখা গেল প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী এবং বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নানকে। তাঁরা   জানালেন,বাংলায় তৃণমূল কংগ্রেসের আচরণ রাজ্যবাসীকে সাধু এবং শয়তানের গল্পই মনে করাচ্ছে। উল্লেখ করলেন দিল্লিতে ডাকা বিরোধীদের ধর্মঘটে তৃণমূলের প্রতিনিধি সুখেন্দুশেখর রায়ের উপস্থিতির কথা। এর পাশাপাশি বললেন,অথচ রাজ্যে বিরোধীদের ধর্মঘটের বিরোধ করে বিজেপিকেই মদত দিচ্ছে তৃণমূল। দিল্লিতে তাঁরা সাধুর ভূমিকা পালন করেছে দাবী বিরোধীদের। এছাড়া ধর্মঘটে অংশগ্রহনকারী কংগ্রেস কর্মীদের বেধড়ক মারধোরের কথাও তুলে ধরা হল বক্তব্যে। এর সঙ্গে জুড়ে এটা বললেন,আসলে এদিনের ধর্মঘটে তৃণমূল নিজেকে বিজেপির দোসর হিসাবেই প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষময় হয়েছে।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!