এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বনধে অশান্তি হওয়া নিয়ে রাজ্য সরকারকে মাস্টারস্ট্রোক দিলেন মুকুল রায়

বনধে অশান্তি হওয়া নিয়ে রাজ্য সরকারকে মাস্টারস্ট্রোক দিলেন মুকুল রায়



আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর ইসলামপুরের ছাত্রমৃত্যুর প্রতিবাদে রাজ্য জুড়ে ধর্মঘট পালন করবে রাজ্য বিজেপি। এমন সিদ্ধান্তের কথাই জানিয়ে দিয়েছে দিন দুয়েক আগে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এই বনধের প্রতিরোধে সমস্ত চেষ্টা করবে তৃণমূল, এমনটাই মন্ত্রীসভায় বৈঠক করার পর ঘোষণা করেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এরপরই রাজ্যবিজেপি সক্রিয় হয়ে রাজ্যসরকারের এই সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করেন। মালদহের ইংলিশবাজারে দিলীপ ঘোষ গতকাল তৃণমূলের বনধ বিরোধীতার কথা শুনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েকে তীব্র আক্রমণ করেন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে। একইসুরে তৃণমূলের বিরুদ্ধে গর্জে উঠতে দেখা গেল রাজ্য বিজেপির প্রথম সারির নেতা মুকুল রায়কেও।

বিজেপির রাজ্য সদর দপ্তরের সাংবাদিক বৈঠকে হাজির হয়ে মুকুল বাবু জানান, তিনি নিশ্চিত সাধারণ মানুষ এই ধর্মঘট সফল করবেই। রাজনৈতিক দল হিসাবে প্রতিবাদ করতে বিজেপি রাজনৈতিক কার্যকলাপ করছে। বাধা দেওয়ার অধিকার রাজ্যসরকারের নেই। আর ধর্মঘটের দিন রাস্তায় যদি কোনো গন্ডোগোল হয়,তাহলে তার সম্পূর্ণ দায় রাজ্যসরকারের। এভাবেই ঘুরিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসকে হুঁসায়ারী দিলেন তিনি। এছাড়া বিজেপি কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশ্য করে বললেন, রাস্তায় নেমে ধর্মঘটের ছুতোয় নেমে মারামারি বা আশান্তি না করতে। বিজেপি কোনো সন্ত্রাসবাদী দল নয়। সন্ত্রাসের মোকাবিলায়ই বিজেপির প্রধান লক্ষ্য। আর সেই লক্ষ্য পূরণের দাবী নিয়ে বাংলার প্রতিটি মানুষের কাছে পৌছানোর কড়া বার্তা দিলেন মুকুল বাবু। বললেন,তিনি রাজ্যের মানুষকে বিশ্বাস করেন। রাজ্যসরকারের অন্যায়ের বিরুদ্ধে করা এই বনধ সফল করবে মানুষই।

 

আর এই নিয়েই রাজনৈতিকমহলের ধারণা এই যে বনধ নিয়ে মাস্টারস্ট্রোক দিলেন রাজ্য সরকার। কেননা রাজনৈতিকমহলের মতে বনধে যে অশান্তি হবেই তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু শাসকদল বিজেপিকে দোষ দেবার আগেই বিজেপি বলবে যে আমরা আগেই বলেছিলাম যে শাসকদল অশান্তি করবে
ফলে তৃণমূলকে যতটা সম্ভব ধৈর্য নিয়েই কাজ করতে হবে।

এরপর উওর দিনাজপুরের জেলা সভাপতি শংকর চক্রবর্তীর গ্রেফতারি প্রসঙ্গেও সরব হলেন মুকুল বাবু। রাজ্যসরকারের কড়া নিন্দা করে বললেন, রাজ্যে ফ্যাসিস্ট সরকার রাজত্ব করছে। একসময় বামজামানায় বিরোধী থাকা কালীন নন্দীগ্রামের মাটিতে দাঁড়িয়ে রাস্তা কাটার কথা বলেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেছিলেন পুলিশের অসহযোগীতা করতে। আজ সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই রাজ্যের ক্ষমতায় এসে ভোল পাল্টে ফেলেছেন। অতীতকে ভুলে ফ্যাসিবাদী আদর্শে মেতেছেন তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

উল্লেখ্য,রাজ্য বিজেপি সূত্র থেকে জানা গিয়েছে, আগামীকাল বিজেপির তরফ থেকে একটা মিছিল হবে উত্তর কোলকাতায় এবং অন্যটি দক্ষিণ কোলকাতায়। উত্তর কোলকাতার মিছিলটি শ্যামবাজার হয়ে যাবে ধর্মতলায়। এই মিছিলের নেতৃত্বে থাকবেন মুকুল রায়। অন্যদিকে হাজরার মিছিলের নেতৃত্বে থাকবেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। রাজ্য দপ্তর থেকে বের হওয়া মিছিলের নেতৃত্ব দেবেন রাহুল সিনহা। অন্যদিকে,উত্তরবঙ্গের বনধের সমর্থনপ মিছিলের সমর্থনে মিছিলের নেতৃত্বে থাকবেন দলের সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তণ বসু এবং রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। হাজার হাজার বিজেপি সমর্থকেরা এই প্রতিবাদ মিছিলে হাঁটবেন এমটাই আশা রেখেছেন রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বরা। বনধ নিয়ে জরুরি কিছু সিদ্ধান্ত নিতে বৈঠকে বসবে রাজ্য বিজেপি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!