এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > অত্রি ভট্টাচার্য এবং রাজীব সিনহাকে শো-কজ করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার

অত্রি ভট্টাচার্য এবং রাজীব সিনহাকে শো-কজ করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার



রাজ্যের দুই আমলা অত্রি ভট্টাচার্য এবং রাজীব সিনহার বিরুদ্ধে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁদের শো-কজ করতে চলেছে কেন্দ্র। ঘটনার সূত্রপাত,গত ১০ নভেম্বর মুকুল রায় কলকাতায় বিজেপির সমাবেশে এসে অভিযোগ করেন যে অনূর্ধ্ব-১৭ ফুটবল বিশ্বকাপে ব্যবহৃত বিশ্ববাংলার লোগো সরকারের নয়। বিশ্ববাংলা কোনও সরকারি সংস্থাও নয়। বিশ্ববাংলা একটি বেসরকারি কোম্পানি, যার মালিক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সাথে এই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো তা বোঝাতে সরকারি নথিতে থাকা বাড়ির ঠিকানার উল্লেখ করেছিলেন মুকুল বাবু। তবে মুকুল রায়ের অভিযোগকে মিথ্যা প্রমান করতে স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্য এবং ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প দফতরের প্রধান সচিব রাজীব সিনহা যে বিবৃতি দেন তার সারাংশ হলো ‘বিশ্ববাংলা’-র মালিক রাজ্য সরকার ,অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নন। এই দুই আমলার বিরুদ্ধে পাল্টা চিঠি দিয়ে সাধারণ মানুষকে মিথ্যা তথ্য দেওয়ার অভিযোগ করেন মুকুল রায় আর এরপরেই তিনি কেন্দ্রীয় পার্সোনেল ও ট্রেনিং মন্ত্রকের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রমন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং-কে
এই নিয়ে চিঠি পাঠান।কেন্দ্রীয় সূত্রেই জানা গিয়েছে, রাজ্যের এই দুই আমলার কাছে মুকুল রায়ের আনা অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁদের বক্তব্য জানতে চাওয়া হয়েছে। মুকুল বাবুর অভিযোগের কি উত্তর তাঁরা দেন তা খতিয়ে দেখা হবে। এছাড়া অভিযোগের সপক্ষে দাখিল করা নথি এবং All India Service Conduct Rules 1968-একসঙ্গে সবকিছুই খতিয়ে দেখা হবে। উত্তর যদি সন্তোষজনক না হয় তবে কেন্দ্র স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্য এবং মাঝারি ও ক্ষুদ্র শিল্পসচিব রাজীব সিনহাকে এ রাজ্য থেকে প্রত্যাহার করে নিতে পারে বলে সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে।নবান্নে অত্রি ভট্টাচার্যকে যে চিঠি পাঠিয়েছেন মুকুল রায় তাতে বলা হয়েছে যে গত ৮ই জুন প্রকাশিত ভারত সরকারের ট্রেড মার্ক অথরিটির পুস্তিকা বলছে ‘বিশ্ব বাংলা’ লোগোর মালিক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মুকুল রায় প্রশ্ন করেছেন, ২০১৩ সালের ৯ সেপ্টেম্বর ওই লোগো প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্য সরকার ওই লোগোর ট্রেডমার্কের জন্য আবেদন করে ২০১৪ সালের ১৯ শে জুন। আর বিশ্ববাংলা মার্কেটিং কর্পোরেশন তৈরি হয় ২০১৪ সালের ৩১ শে ডিসেম্বর। তবে কী করে রাজ্য সরকার ১৯ জুন লোগোর মালিকানার জন্য আবেদন করে? মুকুল রায় স্বরাষ্ট্র সচিব রাজীব সিনহার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন যে ২০১৬ সালের ৩১ শে মার্চ ট্রেডমার্ক অথরিটি রাজ্য সরকারের আবেদন যে ফিরিয়ে দেয় সেটা সাংবাদিক সম্মেলনে গোপন করা হয়েছে। এছাড়া তিনি অভিযোগ করেন যে প্রশাসনিক কর্তা হিসেবে কোনও রাজনৈতিক দলের হয়ে কথা বলাটা ‘সার্ভিস রুল’ অনুসারে অপরাধ।সুতরাং সব মিলিয়ে মুকুল রায় যা অভিযোগ করেছেন তার পরিপেক্ষিতে বেশ অসুবিধায় পড়েছেন এই দুই আমলা।কেন্দ্রকে মুকুল বাবু অনুরোধ করেছেন, স্বরাষ্ট্র সচিবের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক তদন্ত করা দরকার।আর তাই তাই তাঁর আবেদনে সাড়া দিয়ে শো-কজ করতে চলেছে কেন্দ্র। এখন গোটা রাজ্যবাসী তাকিয়ে এই দুই আমলার কিহয় সেই দিকে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!