এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > আসছে বিধানসভা, লোকসভার চেনা ফর্মুলাতেই সংগঠন মজবুত আবারো ‘ক্লাসের’ পথে ফিরছে গেরুয়া শিবির!

আসছে বিধানসভা, লোকসভার চেনা ফর্মুলাতেই সংগঠন মজবুত আবারো ‘ক্লাসের’ পথে ফিরছে গেরুয়া শিবির!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন এখন শাসক থেকে বিরোধী সকল রাজনৈতিক দলের কাছে প্রধান টার্গেট। ইতিমধ্যেই তৃণমূল কংগ্রেস বিভিন্ন জেলায় সংগঠনে বদল আধতে শুরু করেছে। আর তৃণমূল যখন সংগঠনকে চাঙ্গা করার জন্য নানা পদ্ধতি অবলম্বন করছে, ঠিক তখনই সেখান থেকে পিছিয়ে নেই ভারতীয় জনতা পার্টিও।

সূত্রের খবর, এবার কোচবিহার জেলায় বিজেপি নিজেদের সংগঠনকে চাঙ্গা করতে পার্টি ক্লাসের বন্দোবস্ত করেছে। মূলত এই পার্টি ক্লাসের মধ্যে দিয়েই কোন এলাকায় সংগঠন কতটা মজবুত, তার খোঁজ খবর নেবে গেরুয়া শিবির বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কোচবিহার জেলায় বিজেপির 42 টি মন্ডল কমিটি রয়েছে‌‌। প্রতিটি মন্ডলেই এই ক্লাস হবে। যেখানে অংশ নেবেন বিজেপির 100 জন স্থানীয় নেতা-কর্মী। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ওই ক্লাসের আয়োজন করা হয়েছে বলে খবর।

কিন্তু বিজেপির কারা কারা এই ক্লাস নেবেন? জানা গেছে, প্রতিটি মন্ডলে আয়োজিত পার্টি ক্লাসের আলোচক হিসেবে 65 জন নেতৃত্বের তালিকা তৈরি করা হয়েছে‌‌। রাজ্য স্তর থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে তারা ওই দুই দিন এই কর্মসূচি পালন করবেন। আর এখানেই একাংশের প্রশ্ন, তাহলে কি বিজেপি বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূলকে টেক্কা দিতে এবং সংগঠনকে চাঙ্গা করতে এখন থেকে প্রস্তুতি শুরু করে দিল?

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে কোচবিহার জেলা বিজেপি সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় চক্রবর্তী বলেন, “পার্টির মতাদর্শের মত নানা বিষয়ে জানাতে আগেও এরকম কর্মসূচি করা হয়েছে। গত লোকসভা ভোট করোনা আবহের মাঝে তা করা যায়নি। এবার পুজোর আগেই ফের দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রতিটি মন্ডল স্তরে এই কর্মসূচি করা হচ্ছে। মূলত সকলের কাছে দলের মতাদর্শ, লক্ষ্য, পরিকল্পনা মত নানা বিষয় স্পষ্ট করতে দুদিনের পার্টি ক্লাস হবে।”

তবে বিজেপির পক্ষ থেকে এই পার্টি ক্লাস করা হলেও তাতে গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃণমূল কংগ্রেস। এদিন এই প্রসঙ্গে কোচবিহার জেলা তৃনমূলের চেয়ারম্যান বিনয়কৃষ্ণ বর্মন বলেন, “ওদের ওই কর্মসূচি নিয়ে গুরুত্ব দেওয়ার কিছু নেই। সাধারন মানুষ ওদের সঙ্গে নেই।” তবে তৃণমূলের পক্ষ থেকে যে কথাই বলা হোক না কেন, বিজেপি এই পার্টি ক্লাসের মধ্যে দিয়ে এখন যে সংগঠনকে আরও বেশি করে চাঙ্গা করার চেষ্টা করবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।  এখন বিজেপি পার্টি ক্লাসের মধ্য দিয়ে সংগঠনকে কতটা চাঙ্গা করতে পারে, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!