এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > গ্রেপ্তার বাংলার দুই হেভিওয়েট বিজেপি সাংসদ, কেন? জেনে নিন!

গ্রেপ্তার বাংলার দুই হেভিওয়েট বিজেপি সাংসদ, কেন? জেনে নিন!



রাজ্যে গণতন্ত্র নেই। বিরোধী নেতারা প্রতিবাদ করতে গেলেই তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে অভিযোগ দীর্ঘদিনের। আর এবার শাসকের বিরুদ্ধে তোলা সেই অভিযোগই ফের যেন সত্যি হতে দেখা গেল। সূত্রের খবর, এবার বেহালায় দলীয় কর্মীদের বাড়ি যাওয়ার পথে গ্রেপ্তার হতে হল বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকার এবং সৌমিত্র খাঁকে। জানা যায়, গত জানুয়ারি মাসে কলকাতা পৌরসভার 125 নম্বর ওয়ার্ডে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় গ্রেপ্তার হন 11 জন বিজেপি কর্মী। শনিবার তাদের দুজনের বাড়ি গিয়ে পরিবার-পরিজনদের কথা সাথে কথা বলার পরিকল্পনা ছিল বাঁকুড়া এবং বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদের।

কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে দিন দলীয় কার্যালয় থেকে বেরোনো সাথে সাথেই বিজেপির এই দুই সাংসদকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। অভিযোগ, সন্ধ্যায় তাদের ঠাকুরপুকুর থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। আর এর পরেই তাদের দুই সাংসদকে গ্রেফতার করার প্রতিবাদে সেই থানার সামনে গিয়ে রীতিমতো বিক্ষোভ দেখায় বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা।মুহুর্তের মধ্যে উত্তাল হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। পরে অবশ্য সৌমিত্র খাঁ এবং সুভাষ সরকারকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। কিন্তু কী কারণে বিজেপির এই সাংসদের গ্রেপ্তার করা হল!‌ এদিন এই ব্যাপারে পুলিশের বিরুদ্ধে সরব হন বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ ডঃ সুভাষ সরকার।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তিনি বলেন, “এই রাজ্যে গণতন্ত্রের এই তো চেহারা‌। দেশের অন্যান্য রাজ্যে গণতন্ত্র নেই বলে যিনি অভিযোগ করেন, তার শাসনে আমরা নিজের দলের কর্মীর বাড়িতে যেতে গেলে পুলিশ আটকে দেয়। সাংসদদের গ্রেপ্তার করতে হলে লোকসভার স্পিকারকে জানাতে হয়। পুলিশ আমাদের গ্রেপ্তার করার আগে সেই নিয়ম মেনেছে কিনা, তা নিয়ে আমরা খোঁজখবর করব।” রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রাজ্য পুলিশ এবং রাজ্যের শাসক দল একত্রিত হয়ে বিরোধী দল বিজেপির নেতা কর্মীদের মিথ্যে মামলায় ফাসাচ্ছে বলে দীর্ঘদিন ধরে অভিযোগ করছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

কিন্তু এবার যেভাবে দলের কর্মীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করার জন্য গ্রেপ্তার হতে হল বিজেপির দুই সাংসদকে, তাতে নিঃসন্দেহে রাজ্য পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন ওঠাই স্বাভাবিক। তবে কোনো দোষ না করা সত্ত্বেও কেন বিজেপির এই দুই সাংসদকে গ্রেপ্তার করা হল! তাহলে কি রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতে গিয়েই রাজ্যের শাসকদলের অঙ্গুলি হেলনে পুলিশ প্রশাসন বিজেপির এই দুই সাংসদকে গ্রেপ্তার করল! এখন তা নিয়ে প্রশ্নটা থেকেই যাচ্ছে রাজনৈতিক মহলে।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!