এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > দক্ষিণ দিনাজপুরে কেন্দ্রীয় উদাসীনতা নিয়ে সংসদে সরব তৃণমূল সাংসদ অর্পিতা ঘোষ

দক্ষিণ দিনাজপুরে কেন্দ্রীয় উদাসীনতা নিয়ে সংসদে সরব তৃণমূল সাংসদ অর্পিতা ঘোষ



কিছুদিন আগেই জেলায় বুনিয়াদপুরে প্রাক্তন রেলমন্ত্রী তথা বর্তমানে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে শিলান্যাস হওয়া রেল ওয়াগান ফ্যাক্টরির কাজ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় রেলমন্ত্রক। যার জেরে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃনমূল সাংসদ দক্ষিন দিনাজপুরের তপনে এসে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ তুলে সরব হয়েছিলেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এবার গত বুধবার সংসদে জেলার বিএসএনএল পরিষেবার অব্যাবস্থা নিয়ে ফের কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন তিনি। জানা গেছে, দক্ষিন দিনাজপুরের প্রায় বেশিরভাগ সরকারি দপ্তর ও ব্যাঙ্কগুলি বিএসএনএল নেটওয়ার্ক সিষ্টেম চালু রাখলেও মাঝেমধ্যেই কাজ করতে গিয়ে লিঙ্ক বন্ধের কারনে দেখা দেয় বিভ্রাট। এদিকে স্বাধীনতার এত বছর পরেও জেলায় কোনোরুপ টেলিকম অফিস না থাকায় বিভাগীয় অনেককে ছুটতে হয় রায়গঞ্জে।

 

 

যা নিয়ে বিভিন্ন সময় সোচ্চার হয়েছেন জেলার মানুষেরাও।  তবে নিজেদের দিকে গ্রাহক টানতে এখন বিএসএনএল নানা সুযোগ সুবিধা দিলেও সরকারি দপ্তরগুলি এই বিএসএনএল লাইন বন্ধ করতে শুরু করেছেন। ফলে সাধারন মানুষ সরকারি দপ্তরে তাঁদের অভাব অভিযোগ জানানো থেকে বঞ্চিতই থেকে যাচ্ছেন।

 

এদিন এই সমস্ত কথা তুলে ধরে বালুরঘাটের সাংসদ অর্পিতা ঘোষ বলেন, “কেন্দ্র যেখানে সমস্ত কিছু ডিজিটাল করতে চাইছে ঠিক সেখানেই দক্ষিন দিনাজপুর জেলাতে প্রচুর বিএসএনএল গ্রাহক থাকা সত্তেও নেটওয়ার্ক না থাকার কারনে সেই সুযোগ থেকে মানুষ বঞ্চিত হচ্ছেন। এ ব্যাপারে কেন্দ্রর অবিলম্বে দৃষ্টি আকর্ষন করা উচিত।” জানা গেছে, এদিন এই সমস্যা সমাধানের জন্য স্পিকার সুমিত্রা মহাজন ও কেন্দ্রীয় টেলিকম মন্ত্রীর কাছে মৌখিক ভাবে আবেদন জানান তৃনমূলের এই নাট্যকার-সাংসদ। সব মিলিয়ে দক্ষিন দিনাজপুরে কেন্দ্রের বঞ্চনার অভিযোগ তুলে ফরে বিজেপিকে একহাত নিলেন অর্পিতা ঘোষ।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!