এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > কর্মীদের সামনেই নেতাদের ব্যাপক ধমক দিলেন অনুব্রত, জেনে নিন কারণ!

কর্মীদের সামনেই নেতাদের ব্যাপক ধমক দিলেন অনুব্রত, জেনে নিন কারণ!



তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা বারবার দাবি করেন, তাদের কাছে কর্মীরাই সব। কর্মীরা না হলে নেতাদের দাম নেই। তাই কর্মীদের যাতে কোনো অসুবিধা না হয়, তার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে শুরু করে তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ স্তরের নেতা নেত্রীদের গলায় শোনা যায় কর্মী দরদী মনোভাব। কিন্তু এবার দলের জনসভায় ভাষণ শুনতে আসা কর্মীদের জন্য আসনের ব্যবস্থা না থাকায়, রীতিমতো দলীয় নেতৃত্বকে ভৎসনা করলেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মন্ডল।

সূত্রের খবর, এদিন দুবরাজপুরের আশ্রম ময়দানে তৃণমূলের তরফে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। যেখানে উপস্থিত ছিলেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল, জেলা তৃণমূলের সহ-সভাপতি অভিজিৎ সিংহ, বিধায়ক অশোক চট্টোপাধ্যায়, মলয় মুখোপাধ্যায়, বিকাশ রায় চৌধুরী সহ অন্যান্যরা। এদিন বক্তব্য রাখতে উঠে কর্মীদের জন্য সঠিক বসার জায়গা না থাকায় স্থানীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে সরব হন অনুব্রত মণ্ডল।

তিনি বলেন, “রাস্তায় আসার সময় মা বোনেদের দেখে জিজ্ঞেস করলাম, আপনারা চলে এলেন কেন! তারা বললেন, ধুলোতে বসতে পারিনি। তারপর জিজ্ঞেস করলাম, বসার আসন দেয়নি! বললেন, না দেখতে পাইনি। এটা আমার দুর্ভাগ্য। আমার ভুল হয়েছে। আমি আপনাদের কাছে ক্ষমা চাইছি। এরা নাবালক শিশু। জীবনে মিটিং মিছিল করেনি। মানুষকে বসতে দিতে হয়, এরা জানে না। এরা ওয়াশ করা পাঞ্জাবি, পাতলুন পরে।” আর দলের কর্মীদের জন্য অনুব্রত মণ্ডলের এই দরদী মনোভাব দেখে রীতিমতো খুশির হাওয়া বইতে শুরু করে উপস্থিত কর্মীদের মধ্যে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই সভা থেকে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে সরব হয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও ভারতীয় জনতা পার্টিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন অনুব্রত মণ্ডল। তিনি বলেন, “আজ ভারতবর্ষে ভীষণ সংকট চলছে। কি দোষ করেছিল এই হিন্দু, মুসলিম ভাইরা! অনেক মানুষের প্রাণ গেল। এর জন্য মোদিকে জবাব দিতে হবে। মোদী তুমি ভারতের জন্য কি করেছ! তুমি কিচ্ছু করতে জানো না। কিন্তু আজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কন্যাশ্রী করেছে। 71 সালের দলিল নেই মানুষের। তারা জেলখানায় যাবে, তাই না! তখন তুমি হাততালি মারবে। হাততালি মারতে দেব না। হাতটা ভেঙে দেব। কোনো কাগজ দেখাব না‌। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে দেওয়া কাগজেই তোমার তথ্যের ঠিক নেই‌। নিজের কাগজ দেখাতে পারনি। তাহলে তুমি কি করে অন্যের কাগজ দেখাতে বলো!”

এদিকে এদিনের এই জনসভার পর পৌরসভা ভোট নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন অনুব্রত মণ্ডল। তিনি বলেন, “মানুষ 16-0 রায় দেবে।” অর্থাৎ বীরভূম জেলায় যে 16 টি পৌরসভা আছে, সবকটিই তৃণমূল কংগ্রেস দখল করবে বলে নিজের বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে জানিয়ে দিয়েছেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। সব মিলিয়ে দুবরাজপুরের জনসভা থেকে একদিকে কর্মী দরদী মনোভাব, আর অন্যদিকে বিজেপি বিরোধী মনোভাব দিয়ে গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে সোচ্চার হলেন বীরভূম জেলা তৃণমূলের সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!