এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ফের কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নিয়ে মোদিকে আক্রমণ অনুব্রতর

ফের কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নিয়ে মোদিকে আক্রমণ অনুব্রতর



নির্বাচনী নির্ঘন্ট ঘোষণা করার পাশাপাশি ভোটের আচরণবিধিও একসঙ্গে জারি করে দিয়েছে কমিশন। তারপর থেকেই ভোটের মরশুমে রাজ্যকে বাড়তি সুরক্ষা দিতে কেন্দ্রীয় বাহিনী আসতে শুরু করেছে রাজ্যে। এ নিয়ে দফায় দফায় সরব হয়েছে রাজ্যের শাসকদল।

সম্প্রতি তৃণমূল প্রার্থীকে নিয়ে প্রচারে নেমে রাজ্যে আগত কেন্দ্রীয় বাহিনীকে তীব্র আক্রমণ করেছিলেন কোচবিহার জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। রীতিমতো হুঁসিয়ারী দিয়ে বলেছিলেন,”ভোটের পর আর কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকবে না। আমরা কিন্তু থাকব সারা বছর। তাই মনে করে জোড়া ফুলেই ভোট দেবেন।”

এরপর এদিন কেন্দ্রীয় বাহিনীকে কার্যত মোদীর ‘দালাল’ বলে অভিহিত করলেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। কড়া বার্তা দিয়ে জানালেন,কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নিরপেক্ষ হয়ে কাজ করতে হবে। মোদীর দালালি করলে চলবে না।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিন অনুব্রত মণ্ডল দলীয় কর্মীদের অভয় দিয়ে বললেন,কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ভয় পাওয়ার কিছু হয়নি। তাঁরা তাঁদের মতো কাজ করবে আর তৃণমূল তৃণমূলের মতো কাজ করে যাবে। এছাড়া কেন্দ্রীয় বাহিনী দেখলে নিয়ম মেনে স্যালুট জানানোর পরামর্শও দেন তিনি। তবে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নিরপেক্ষ থাকার হুঁসিয়ারী দিয়ে গর্জে উঠে তিনি বলেন,”কেন্দ্রীয় বাহিনীকেও নিরপেক্ষ কাজ করতে হবে। যেন মোদীর দালালি না করে, চামচাগিরি না করে। মানুষের দালালি করুন। প্রত্যেক বুথে নকুলদানা রাখবেন। নকুলদানা পৌঁছে দেবেন।”

বীরভূমের দোর্দন্ডপ্রতাপশালী নেতা অনুব্রত মণ্ডলের এই ধরণে হুঁসিয়ারী মন্তব্যের পর প্রতিবারের মতো এবারও স্বাভাবিকভাবে চর্চা শুরু হয়েছে রাজনৈতিকমহলে। তবে এই প্রেক্ষিতে তাঁর বিরুদ্ধে বিজেপি নেতাদের কোনো মন্তব্য এখনো সমানে আসেনি। উল্লেখ্য,রাজ্যের মন্ত্রী তথা কোলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমও এর আগে দাবী করেছিলেন কেন্দ্রীয় বাহিনী বিভিন্ন জায়গায় ভোটারদের ভয় দেখাচ্ছে।

বিজেপি রাজনৈতিক স্বার্থে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ব্যবহার করছে বলেই অভিযোগ ছিল তাঁর। এছাড়া ভোটের মাস দেড়েক আগে কেন্দ্রীয় বাহিনী পৌছে যাওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তৃণমূলের জাতীয় মুখপাত্র তথা রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!