এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে গেল নারদ মামলার শুনানি হাইকোর্টে

অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে গেল নারদ মামলার শুনানি হাইকোর্টে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – হাইকোর্টে অনির্দিষ্টকালের জন্য নারদ মামলার শুনানি পিছিয়ে দেয়া হলো। আগামীকাল সুপ্রিম কোর্টে নারদ মামলা সম্পর্কিত রাজ্যের আইনমন্ত্রী মলয় ঘটকের আবেদনের শুনানি রয়েছে। এ কারণে হাইকোর্টে মামলার শুনানি পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে, অনেকে মনে করছেন। অন্যদিকে ভোট-পরবর্তী হিংসার অভিযোগ নিয়ে চলা মামলা শুনানি আজ হাইকোর্টে। যার ফলে ব্যস্ত রয়েছে হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চ। এ কারণেও আজ শুনানি বন্ধ করা হলো বলে, মনে করছেন অনেকে। এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন কবে ধার্য করা হবে? সে বিষয়ে এখনো কিছু জানায়নি হাইকোর্ট।

প্রসঙ্গত, গত ১৭ ই মে নারদ মামলায় সিবিআই গ্রেপ্তার করেছিল রাজ্যের ৪ হেভিওয়েট সুব্রত মুখোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম, মদন মিত্র, শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। গ্রেফতার করে তাঁদের আনা হয়েছিল নিজাম প্যালেসে। সেখানে উপস্থিত হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যের আইন মন্ত্রী মলয় ঘটক প্রমুখরা। সিবিআই অভিযোগ করেছে যে, হেভিয়েটদের আদালতে নিয়ে যাওয়ার সময় তাঁরা বাধা দিয়েছিলেন। কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, মলয় ঘটক তৃণমূল সমর্থকদের সেখানে এনে পরিস্থিতি উত্তপ্ত করেছেন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এরপর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, আইন মন্ত্রী মলয় ঘটক, তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় মামলায় নিজেদের রাজনৈতিক প্রভাবকে কাজে লাগাতে পারেন বলে, অভিযোগ করেছিল সিবিআই। তাঁদেরকে মামলার পক্ষ করে, এই মামলা অন্য রাজ্যে সরিয়ে নেওয়ার আবেদন জানানো হয়েছিল। এরপর হাইকোর্ট মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও মলয় ঘটকের জবাবি হলফনামা গ্রহণ করা হয়নি পূর্ববর্তী শুনানির দিনে।

এরপর সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়ে মামলা থেকে নিজেকে বাদ দেওয়ার আর্জি জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক। আগামীকাল সুপ্রিম কোর্টে এই মামলার শুনানি রয়েছে। আবার সিবিআই এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, তাদের বক্তব্য শুনতে হবে সুপ্রিম কোর্টকে। এবার বিষয়টি নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট কী নির্দেশ দেয়? সে দিকে লক্ষ্য রাখতে পারে হাইকোর্ট। এরপর হাইকোর্টে এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ঘোষিত হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!