এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অমিত শাহের মাস্টারস্ট্রোক! ক্ষমতায় এলে 90 দিনেই চিটফান্ডে জড়িতদের শাস্তির আশ্বাস

অমিত শাহের মাস্টারস্ট্রোক! ক্ষমতায় এলে 90 দিনেই চিটফান্ডে জড়িতদের শাস্তির আশ্বাস



সারদা এবং নারদা কান্ডে অনেক হেভিওয়েট ও প্রভাবশালী ব্যক্তিদের নাম থাকলেও এবং এনিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হলেও সেই ভাবে সেই সমস্ত নাম থাকা ব্যক্তিদের কোনো শাস্তি না হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরেই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস এবং কেন্দ্রীয় শাসক দল বিজেপির মধ্যে সমঝোতার অভিযোগ তুলে এসেছে বামেরা।

তবে এবার সাম্প্রতিককালে বাংলায় লোকসভা ভোটের প্রচারে এসে সেই সারদা-কাণ্ডে দোষীদের শাস্তি দেওয়া নিয়ে বারে বারেই সরব হতে দেখা গেছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। আর এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পর বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর গলায় শোনা গেল সেই সারদা এবং নারদা কাণ্ডে দোষীদের শাস্তি দেওয়ার আশ্বাস।

সূত্রের খবর, বুধবার হাওড়া, আরামবাগ, চুঁচুড়া এবং কল্যাণীতে চারটি নির্বাচনী সভা করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। আর সেখানেই সারদাকাণ্ডের প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি বলেন, “চিটফান্ডের দুর্নীতিতে বাংলায় 25-30 হাজার কোটি টাকা খেয়ে গিয়েছে। মমতা দিদি থাকলে এদের সাজা হবে কি? হবে না। বিজেপি ক্ষমতায় এলে 90 দিনের মধ্যে এদের সিধে করা হবে।”


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ রাজ্যের নির্বাচনী সভার মধ্যে দিয়ে সেই চিটফান্ড কাণ্ডে দুর্নীতিতে জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার করার কথা বলে একদিকে যেমন এই চিটফান্ড কাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের সমর্থন পাওয়ার চেষ্টা করলেন, ঠিক তেমনই ফের কেন্দ্রের ক্ষমতায় আসলে দুর্নীতিগ্রস্তদের 90 দিনের মধ্যেই শাস্তি দেওয়া হবে বলে উল্লেখ করে নিজেদের সরকারকে “দুর্নীতির সঙ্গে আপস না করা সরকার” বলে প্রমাণ করার চেষ্টা করলেন তিনি বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহলের একাংশ।

এদিকে এদিনের এই সভা থেকে আগামী 23 শে মে ভোটগণনার দিন বিজেপি বাংলার 23 টি আসন দখল করবে বলেও আত্মপ্রত্যয়ের সুর শোনা গেছে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের গলায়। তবে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি যখন ফের তারা যদি ক্ষমতায় আসে তাহলে 90 দিনের মধ্যে চিটফান্ড কাণ্ডে জড়িত ব্যক্তিদের শাস্তি দেওয়া হবে বলে উল্লেখ করলে এদিন সেই প্রসঙ্গে পাল্টা বিজেপিকে কথা দিয়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস।

এদিন এই প্রসঙ্গে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “গত পাঁচ বছরে অন্তত দশবার নানা নির্বাচনের সময়ে এই কুমির ছানা বিজেপি দেখিয়েছে এবং মানুষ তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে। আমরাই চিটফান্ডের দুর্নীতির সঙ্গে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করেছে। এতদিন এই ঘটনায় দোষীদের সিবিআই গ্রেপ্তার করতে পারেনি কেন, সেই জবাব আগে বিজেপি নেতারা দিক।” অন্যদিকে এই ব্যাপার গেরুয়া শিবিরকে বিধতে ছাড়েনি বাম শিবিরও।

এদিন বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ থেকে বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, “সিবিআইকে সর্বোচ্চ আদালত তদন্তের ভার দেওয়ার পরও 1825 দিন পার হয়ে যাওয়া সত্ত্বেও এখনও রাঘববোয়ালরা ধরা পরল না। এখন ওরা 90 দিনের কথা বলছেন। ওদের লজ্জা থাকলে ওরা এমন কথা বলতেন না।”

সব মিলিয়ে এবার রাজ্যের সভা থেকে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি ফের কেন্দ্রের ক্ষমতায় আসলে দুর্নীতিগ্রস্তদের 90 দিনের মধ্যে শাস্তি দেওয়া হবে বলে উল্লেখ করলে পাল্টা এই ব্যাপারে সেই বিজেপিকেই কটাক্ষ ছুড়ে দিল তৃণমূল এবং বামফ্রন্ট।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!