এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বাংলা দখলে সোশ্যাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করার পরামর্শ অমিত শাহের

বাংলা দখলে সোশ্যাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করার পরামর্শ অমিত শাহের



আগামী বছরের লোকসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রস্তুতি দেখা দিচ্ছে সব রাজনৈতিক দলগুলিতেই। দলীয় প্রচারের অংশ হিসেবে মিটিং, মিছিল, জনসভা, বাড়ি বাড়ি প্রচারের পাশাপাশি এবারে সোস্যাল মিডিয়াকেও ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত ইতিমধ্যেই নিয়ে ফেলেছে গেরুয়া শিবির। এক্ষেত্রে ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপের মতো সোশ্যাল সাইট দলীয় প্রচারের অংশ হতে চলেছে। বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ’র রাজ্য সফরে এদিন তিনি হাওড়ার শরত্‍সদনে দলীয় নেতা-কর্মীদের সাথে এক ঘন্টা বৈঠকে সোস্যাল মিডিয়াকে দলীয় প্রচারে ব্যবহারের পদ্ধতি সম্পর্কে তাঁদের অবগত করলেন। এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মুকুল রায়, বাবুল সুপ্রিয় প্রমুখ দলের শীর্ষ নেতৃত্ব সহ বিজেপির আইটি সেলের কর্মীরা। এই কর্মীরাও উপিওস্থিত দলীয় কর্মীদের সংশ্লিষ্ট সোশ্যাল সাইটগুলির মাধ্যমে কী করে কেন্দ্রের উন্নয়ন মুলক কাজ, বিভিন্ন যোজনার সুফলের তথ্য শহরের পাশাপাশি গ্রামাঞ্চলের মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে হবে সে সম্পর্কে হাতে কলমে স্পষ্ট ধারণা দেখিয়ে দিলেন।

 

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

 

এদিনের অনুষ্ঠানে অমিত শাহ উপস্থিত দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বললেন, “ডিজিটাল ইন্ডিয়ার ওপর জোর দিন। গ্রামাঞ্চলে অনেকের কাছেই স্মার্ট ফোন রয়েছে, কিন্তু তাঁরা ইন্টারনেটের সঠিক ব্যবহার জানেন না। আপনাদের দায়িত্ব বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাঁদের এবিষয়ে যথাযথ প্রশিক্ষণ দিয়ে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার সম্পর্কে সাবলীল করে তোলা।” একই সাথে তিনি দলীয় কর্মীদের কিছু কিছু বিষয়ে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিয়ে বললেন, ”বাংলার গ্রামাঞ্চলের বহু মানুষ হিন্দি বোঝেন না। তাই বাড়ি বাড়ি জনসংযোগে গিয়ে বাংলা ভাষাতে জোর দিতে হবে। বাংলাতেই কথা বলতে হবে। তাতে অনেক বেশি করে মানুষের কাছে পৌঁছানো সম্ভব হবে।” রাজ্যের শাসক দল তঅথা মুখ্যমন্ত্রীকেও সমালোচনা করতে কোনো কসুর করলেন না বিজেপি সভাপতি এদিন। রাজ্য সরকার কে কটাক্ষ করেই তিনি বললেন, ”কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক প্রকল্প সম্পর্কে নিজেরা তথ্য সমৃদ্ধ হন। তাহলে সহজেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের ভাঁওতাবাজির মুখোশ খুলে দেওয়া সম্ভব হবে।” ওয়াকিবহাল মহলের মতে, সোশ্যাল সাইটের ওপর বাড়তি জোর দেওয়া থেকে দু’দিনের ঝটিকা সফরে দলের সর্বভারতীয় সভাপতি যেভাবে একাধিক কর্মসূচী রেখেছেন তাতে করে স্পষ্টতই অনুমান করা যায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের পশ্চিমবঙ্গকে জয়লাভের জন্যে অন্যতম ঘাঁটি করতে চাইছে বিজেপি দল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!