এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > কংগ্রেস > কি এমন হল যে উৎসবের মরশুমের আগেই মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিলেন – “আমি পদত্যাগ করতে ভীত নই”!

কি এমন হল যে উৎসবের মরশুমের আগেই মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিলেন – “আমি পদত্যাগ করতে ভীত নই”!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট বাদল অদিবেশনের হাত ধরে লোকসভায় পাস হয়ে যায় কৃষি বিল আর তারপর থেকেই শুরু হয়েছে দেশজুড়ে বিক্ষোভ কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি আইনের বিরুদ্ধে। বিরোধীদের সাথে সাথে দেশজুড়ে কৃষকেরাও এই বিলের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন শুরু করেছে। অন্যদিকে কৃষক আন্দোলনের তীব্রতা টের পাওয়া গিয়েছে পাঞ্জাব, হরিয়ানা সহ কৃষিপ্রধান রাজ্যগুলিতে। ইতিমধ্যেই পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি আইনের বিরোধিতায় নিজের রাজ্যে নতুন একটি কৃষি আইন নিয়ে এলেন।

আর সেই সূত্র ধরেই মঙ্গলবার পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিলেন, তিনি পদত্যাগ করতে পিছপা হননা। কিন্তু রাজ্যের কৃষকদের দুর্দশার মুখে পড়তে দিতে তিনি নারাজ। এদিন অমরিন্দর সিং এর মন্ত্রিসভার নেতা চণ্ডীগড়ের বিধানসভার বিশেষ অধিবেশনে দ্বিতীয় দিনে কেন্দ্রীয় আইনের বিরুদ্ধে নতুন একটি প্রস্তাবনা উত্থাপন করেন। একই সাথে কেন্দ্রের কৃষি আইনের বিরোধিতায় তিনটি বিল নিয়ে আসে পাঞ্জাব সরকার। রাজ্যস্তরে কৃষি আইনের বিরোধিতা করতে পাঞ্জাব সরকার রাজ্যের আইনকেই যতটা সম্ভব বেশি ব্যবহার করেছে বলে জানা যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি আইনের বিরোধিতায় সবথেকে বেশি আন্দোলন তৈরি হয়েছে পাঞ্জাবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। অন্যদিকে মঙ্গলবার পাঞ্জাবের কৃষকদের উদ্দেশ্যে অমরিন্দর সিং জানালেন, সরকার কৃষকদের পাশে দাঁড়াচ্ছে, এবার কৃষকরাও পাঞ্জাব সরকারের সাথে দাঁড়াক। জানা গিয়েছে, অমরিন্দর সিং এর আনা তিনটি বিল হল- কৃষকদের বাণিজ্য (প্রচার ও সুবিধার্থে) বিশেষ বিধান, পাঞ্জাব সংশোধনী বিল 2020, প্রয়োজনীয় পণ্যাদি (বিশেষ বিধান ও পাঞ্জাব সংশোধন) বিল 2020 এবং কৃষকদের (ক্ষমতায়ন ও সুরক্ষা) মূল্য আশ্বাস এবং খামার পরিষেবাদির বিষয়ে চুক্তি (বিশেষ বিধান এবং পাঞ্জাব সংশোধনী) বিল 2020।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে রাজ্যের অন্যতম বিরোধীদল শিরোমনি আকালি শিবির পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে দাবি করেছিলেন, সোমবারই যেন বিলটি পাঞ্জাব বিধানসভায় উপস্থাপিত হয়। প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় কৃষি বিল এর পরিপ্রেক্ষিতে ইতিমধ্যে বিজেপির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে পাঞ্জাবের শিরোমণি অকালি দল। অন্যদিকে জানা গেছে, গত 29 সেপ্টেম্বর রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি বিলকে আইনে পরিণত করেছেন সই করে। অন্যদিকে পাঞ্জাব বিধানসভায় এদিন নতুন কৃষি বিল পেশ করে সেখানে বক্তব্য রাখেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং।

এমনকি কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দেগে তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার ওরফে বিজেপি সরকার সংসদে যে কৃষি বিল শুধুমাত্র ধ্বনিভোটে পাস করিয়ে আইনে পরিণত করেছে, তা মূলত পাঞ্জাব, হরিয়ানা এবং উত্তর প্রদেশের কৃষকদের স্বার্থে আঘাত করছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং দেশের মধ্যে প্রথম মুখ্যমন্ত্রী যিনি নিজের রাজ্যের কৃষকদের স্বার্থে উঠেপড়ে নতুন বিল নিয়ে এলেন। আর এরই পরিপ্রেক্ষিতে রাজনৈতিক মহলের দাবী, পাঞ্জাব রাজ্যে ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং এর জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাবার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার থাকবে এই কৃষি বিলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!