এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > অ্যাম্বুলেন্স না ছাড়া নিয়ে দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে হল মামলা, অস্বস্তিতে বিজেপি

অ্যাম্বুলেন্স না ছাড়া নিয়ে দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে হল মামলা, অস্বস্তিতে বিজেপি



 

রাজ্য রাজনীতিতে বরাবরই বিতর্কে কেন্দ্রবিন্দুতে দেখতে পাওয়া যায় তাঁকে। তিনি আর কেউ নন, বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তবে তাকে কেন্দ্র করে তৈরি হওয়া নতুন বিতর্ক নতুন মাত্রা তৈরি করেছে রাজ্য রাজনীতিতে। কেননা সম্প্রতি কৃষ্ণনগরে জেলাশাসকের অফিসের সামনে পথ আটকে নাগরিকত্ব আইনের সমর্থনে সভা করতে দেখা গিয়েছিল ভারতীয় জনতা পার্টিকে। আর সেই সভায় বক্তব্য রাখছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। অভিযোগ, দীলিপবাবু বক্তব্য রাখার সময় হঠাৎই সেই রাস্তায় একটি অ্যাম্বুলেন্স চলে আসে।

কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে সেই অ্যাম্বুলেন্সের জন্য পথ ছেড়ে না দিয়ে, সেই অ্যাম্বুলেন্সকেই ঘুরে যেতে বলেন দিলীপ ঘোষ। যা নিয়ে সোশ্যাল সাইটে সেই ভিডিও ভাইরাল হতেই চাপে পড়ে যায় গেরুয়া শিবির। এদিকে তৃণমূল পন্থীরা দাবি করেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সবসময় এম্বুলেন্স মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের জনসভাকে বানচাল করে আগে অ্যাম্বুলেন্সের জন্য পথ ছেড়ে দেন। কিন্তু এক্ষেত্রে দিলীপ ঘোষ একদমই ব্যতিক্রম। তিনি তার সভা সফল করার জন্য অ্যাম্বুলেন্সকেও পথ ছাড়লেন না। আসলে তিনি অমানবিক।

তবে যখন তৃণমূলের তরফে এই দাবি করা হচ্ছে, তখন পাল্টা যুক্তি দিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে দিয়েছিলেন দীলিপবাবু। কেন তিনি এম্বুলেন্স এর রাস্তা ফাঁকা করে দিলেন না! তাহলে কি একজন অসুস্থ রোগীকে সুস্থ করা অপেক্ষা তার দলীয় সভা আগে! এই প্রশ্নের উত্তর বঙ্গ বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন, “পরিকল্পনা করে নাগরিকত্বের সমর্থনে আমাদের সভা বানচাল করার জন্য ওই অ্যাম্বুলেন্সকে পাঠানো হয়েছিল। ওই এম্বুলেন্সে কেউ ছিল না।”

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু দিলীপ ঘোষ যখন এই কথা বলছেন, তখন বাস্তব চিত্রটা ঠিক কি বলছে! খোঁজ নিয়ে দেখা গেল, সেদিন কৃষ্ণনগরে দিলীপ ঘোষের সভার রাস্তায় যে অ্যাম্বুলান্স এসেছিল, সেই এম্বুলেন্সে ছিলেন প্রসূতি মঞ্জিরা বিবি। তার প্রসব বেদনা ভয়ঙ্কর আকার নেওয়ায় বাড়ির লোকজন অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু দিলীপ ঘোষ সেই ঘটনাটি যেভাবে পরিকল্পনামাফিক ঘটনা বলে ব্যাখ্যা করলেন, তাতে রাজ্য রাজনীতিতে তুমুল বিতর্ক শুরু হয়ে গেল।

এদিকে দিলীপ ঘোষ এহেন মন্তব্য করায় ইতিমধ্যেই সেই প্রসূতির তরফে তার বিরুদ্ধে কৃষ্ণনগরের কোতোয়ালি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। কিন্তু প্রসূতির পরিবারের তরফে দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে মিথ্যে কথা বলায়, মামলা দায়ের হওয়ায় এখন তীব্র অস্বস্তিতে পড়তে চলেছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

অনেকে বলছেন, কেন বিতর্কিত মন্তব্য করতে গেলেন দিলীপ ঘোষ! সামনেই কৃষ্ণনগর পৌরসভার নির্বাচন। আর তার আগে বিজেপির রাজ্য সভাপতির এই মন্তব্য সেখানে বিজেপিকে অনেকটাই ব্যাকফুটে ফেলে দেবে বলে আশঙ্কা একাংশের। এখন গোটা পরিস্থিতি ঠিক কোনদিকে মোড় নেয়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!