এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ফের স্বমেজাজে দিলীপ, আলুর দাম কেন বেড়েছে রাজ্যে কারণ দর্শালেন বিজেপি সভাপতি !

ফের স্বমেজাজে দিলীপ, আলুর দাম কেন বেড়েছে রাজ্যে কারণ দর্শালেন বিজেপি সভাপতি !



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট- করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের পকেটে টান পড়েছে সে কথা কারোর অজানা নয়। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছিল বিশ্বের যে শতাংশ মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যাবে বলে ধারণা করা হয়েছিল, তার থেকে বহুগুণ বেশি মানুষ অর্থকষ্টে না খেতে পেয়ে সমস্যায় পড়বে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন অর্থনীতিবিদরা। এমন পরিস্থিতিতে বাংলায় যেভাবে নিত্য খাদ্যসামগ্রীর দাম বাড়তে শুরু করেছিল, তা নিয়ে আগেই প্রতিবাদ করতে দেখা গিয়েছিল বিজেপিকে।

এই বিষয়ে প্রতিবাদ করতে গিয়ে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ পেঁয়াজের দাম এবং আলুর দাম নিয়ে সোচ্চার হয়েছিলেন। বস্তুত পেঁয়াজ আর আলুর দাম যেভাবে বাড়ছে, সেইসময় এ বিষয়ে বলতে গিয়ে তাঁর বলতে শোনা গিয়েছিল পেঁয়াজের দাম বাড়ার কারণ হিসেবে এ বছর বিভিন্ন জায়গায় বন্যা পরিস্থিতিকে মেনে নেওয়া যেতে পারে। কারণ এবছর নাসিক থেকে শুরু করে বিভিন্ন জায়গায় বন্যাতে আনাজের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছিল।

কিন্তু তাঁর দাবি ছিল যেহেতু আলু তারকেশ্বর থেকে আসে, এমনকি রাজ্যের বিভিন্ন জায়গাতেও আলু চাষ করা হয়, ফলত আলুর দাম বাড়া নিয়ে রাজ্য প্রশাসন কেন মুখ বন্ধ করে রয়েছে তার উত্তর দিতে হবে। তবে সম্প্রতি আবারও রাজ্যে আলুর দাম বাড়া নিয়ে মুখ খুলতে দেখা গেল রাজ্যে বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষকে। সম্প্রতি খড়গপুরের এক সভা থেকে একাধিক বিষয়ে শাসকদলকে কটাক্ষ করতে দেখা গেছে রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষকে।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সেখানে আলুর দাম বৃদ্ধি প্রসঙ্গে তৃণমূলকে আক্রমণ করে তিনি বলেন, “নেতাদের কাটমানি দিতেই বাড়ছে দাম।” শুধু তাই নয়, আজ রবিবার দুপুরে পূর্ব মেদিনীপুরের হলদিয়ায় আয়োজিত বিজেপির জনসভায় আমফানের ত্রাণ থেকে আলুর দাম, একাধিক ইস্যুতে মমতা সরকারকে কটাক্ষ করেন তিনি।

তাঁর কথায়, “আলুর দাম বাড়ার কারণ কাটমানি। তৃণমূল নেতাদের কাটমানি দেওয়ার জন্যই আলুর দাম বাড়ানো হয়েছে।” সেইসঙ্গে রাজ্যে তৃণমূলের পুরোহিত ভাতা থেকে শুরু করে আমফানের ত্রাণ, সবেতেই তৃণমূল স্বজনপোষন করছে বলে কটাক্ষ করতে শোনা যায় তাঁকে। সেইসঙ্গে সংখ্যালঘুদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, “বিজেপি কোনও বিভাজন করে না। মোদির প্রকল্পে রাজ্যের সংখ্যালঘুরাও উপকৃত।”

অন্যদিকে অমিত শাহের সফরের পর দিলীপ ঘোষ যে বেশ আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছেন, সেটাও বোঝা গেছে। সভায় দাঁড়িয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, “একুশে ২০০-র বেশি আসন পেলে বাংলায় সরকার গড়বে বিজেপি।” শুধু তাই নয়, “একমাস পর দিদির পুলিশের দাঁত ভাঙবেন অমিত শাহ” এমন কথাও বলতে শোনা গেছে তাঁকে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, শাসকদলের কর্মীরা বিজেপিতে আসার ইচ্ছে প্রকাশ করলে পুলিশকে দিয়ে চাপ দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছিল শাসকদলের বিরুদ্ধে। আর তাই তিনি পুলিশের সম্পর্কে এমন কথা বলেছেন বলে জানা গেছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!