এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নেতাজি উৎসব নিয়ে বঞ্চনার অভিযোগ বিরোধী কাউন্সিলরদের

নেতাজি উৎসব নিয়ে বঞ্চনার অভিযোগ বিরোধী কাউন্সিলরদের



নেতাজি উৎসব নিয়ে বেশ তৎপর রাজ্য প্রশাসন তাই রাজ্যের যুব কল্যান দপ্তর থেকে ওয়ার্ড পিছু ৩০০০০ টাকা সুভাষ উৎসব উদযাপনের জন্য অনুদান দেওয়া হবে বলে সুত্রের খবর। কিন্তু বিরোধী দলের কাউন্সিলারদের অভিযোগ যে সব কাউন্সিলারকে টাকা দেওয়া হচ্ছে না এবং কলকাতাতেই কিছু বিরোধী পুরপ্রতিনিধকে সুভাষ উৎসব থেকে দরে রাখা হচ্ছে।
উৎসব থেকে প্রধানত বাদ পড়েছন উত্তর ও‌মধ্য কলকাতার সিপিএম ও‌বিজেপির কাউন্সিলাররা। কিন্তু মেয়র ঘনিষ্ট কিছু বিরোধী দলের কাউন্সিলাররা টাকা পেয়েছেন। এই বিভেদ নীতির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছেন কংগ্রেসের কাউন্সিলার প্রকাশ উপাধ্যায়। তাঁর দাবী ,” কিছু কাউন্সিলারকে বাদ দেওয়া চরম অগনতান্ত্রিক আচরণ।” পুরসভা সুত্রে খবর যে আট ও‌দশ নম্বর বরোয় যথাক্রমে দুজন ও চার জন বিজেপি ও‌বাম কাউন্সিলার আছে যারা টাকা পাননি। তবে দশ নম্বরের বাম‌ কাউন্সিলারের অভিযোগ ,” ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে বরো চেয়ারম্যান, তৃণমূল নেতা তপন দাশগুপ্ত তাঁদের ডেকে ১২ জানুয়ারি বিবেক মেলা ও ২৩ জানুয়ারী সুভাষ উৎসবের আয়োজন করতে বলেন। কিন্তু বিবেক মেলার পরে গত শনিবার বরো অফিস থেকে‌ফোন করে জানানো হয়, তাঁদের সুভাষ উৎসবের দরকার নেই। মৃত্যুঞ্জবাবুর বাদ পড়ার কারণ নিয়ে চেয়ারম্যান নিরব ছিলেন। আট নম্বর বরোর ৮৬ নম্বর ওয়ার্ডের বিজেপি কাউনজন্সিলা এর চরম‌নিন্দা করেন এবং নিজের খরচায় উৎসব করবেন বলে জানান।
তবে ১০ নম্বর বরো চেয়ারম্যান জানায় যে ওই‌ সব কাউন্সিলার আগের বিবেক‌ উৎসবের আয়োজন ভালো‌ করেনি তাই এটা করা হয়েছে।
রেড রোডের অনুষ্ঠান ঘিরেও বাম-তৃণমূলের কোন্দল‌ লেগেছে। রেড রোডে বামেদের অনুষ্ঠান আগে থেকেই ঠিক করা ছিল কিন্তু হঠাৎ‌ সেখানে মুখ্যামন্ত্রী অনুষ্ঠান করবেন বলে বামেদের কার্ড পাঠান। অগ্যতা বামেরা অনুষ্ঠান পরিবর্তন করে রাজা সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে আয়োজন করেন।
এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় নেতাজী জয়ন্তি‌ কমিটির চেয়ারম্যান বরুণ মুখপাধ্যায়ের বক্তব্য, ” সরকার ‌আগে জানলে যৌথ ভাবেই অনুষ্ঠাম করা যেত। সেই সময় আর‌ নেই। আমাদের‌ পক্ষে মাহেন্দ্রক্ষন হল বেলা সওয়া ১২টা। আমরা সেই‌সময়ের অনুষ্ঠান সুবোধ‌ মল্লিক ‌স্কোয়ারে করে ২ টোয় মিছিল করে রেড রোডে যাব।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!