এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বিজেপিকে মাত দিতে সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে নয়া পদক্ষেপ মুখ্যমন্ত্রীর

বিজেপিকে মাত দিতে সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে নয়া পদক্ষেপ মুখ্যমন্ত্রীর



বিজেপিকে মাত দিতে সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে নয়া পদক্ষেপ মুখ্যমন্ত্রীর।
কেবলমাত্র সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলির সাহয্যেই বিজেপির জনসংযোগ অব্যাহত থাকে অনেকের মতো একথা বিশাস করেন অনেক তৃণমূল কংগ্রেসী নেতাও । বিজেপির প্রভাব প্রতিপত্তি বৃদ্ধির গতি রুখতে শুক্রবার নজরুল মঞ্চে দলের বর্ধিত কোর কমিটির বৈঠকে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, “বিজেপির মতো আমাদের এত পয়সা নেই। ওরা সবসময় সোশ্যাল মিডিয়ায় অপপ্রচার করে বেরাচ্ছে। এর জবাব দিতে হবে। নেতা-কর্মীদের ছেলেমেয়েদের গায়ে-গতরে খাটতে হবে। ওদের বলুন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে গিয়ে কাজ করতে।” আর এই দ্বায়িত্ত্ব নতুনদের দেওয়ার পিছনেও যথেষ্ট কারণ আছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। কেননা এখনো তেমনভাবে আমাদের আগের প্রজন্ম এই সোশ্যাল মিডিয়াতে সেভাবে অভ্যাস্ত নন.যতটা সাবলীল আজকের প্রজন্ম। তাই নেতা নেত্রীদের ছেলে-মেয়েদেরকেই এই দ্বায়িত্ব দিলেন বলে মত অনেকের পাশাপাশি তাদের মতে ,এতে একটা সুবিধাও আছে কেননা তারা তৃণমূলের সম্পর্খে ভেতরের খবর অনেক জানেন ফলে তা প্রচার করা সুবিধা হবে তাদের পক্ষে। অন্যদিকে আবার এইভাবে নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণকরতেও পারবেন তাঁরা। ফলে নেত্রীও বুঝবেন কাকে দিয়ে কোন কাজ হবে।তাই নেত্রী এক ঢিলে দুই পাখি মারলেন বলেই মনে করছেন সংশ্লিষ্ট মহল। এ বিষয়ে বিধায়ক স্মিতা বক্সীর ছেলে তথা উত্তর কলকাতার তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি সৌম্য বক্সী বলেন, “এটা ঠিক আমরা ওদের (বিজেপি) মতো সোশ্যাল মিডিয়ায় অত স্ট্রং নই। আমাদের কয়েকজন আছে বিষয়টি দেখার জন্য। তাই আমরা সেভাবে কোনও দিন অত মাথা ঘামাইনি। দলও আমাদের সেভাবে কখনও নির্দেশ দেয়নি।কিন্তু, এ বার নেত্রী যখন নির্দেশ দিয়েছেন তখন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায় আরও সক্রিয় হতে হবে।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!