এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > আক্রান্ত সুজাতা খাঁ, কমিশনে রিপোর্ট দিলেন পুলিশ সুপার, জেনে নিন!

আক্রান্ত সুজাতা খাঁ, কমিশনে রিপোর্ট দিলেন পুলিশ সুপার, জেনে নিন!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – তৃতীয় দফার ভোটে বেশকিছু ঘটনা খবরের শিরোনামে জায়গা করে নিয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম আরামবাগের তৃণমূল প্রার্থী সুজাতা মন্ডলের উপর আক্রমণ। যেখানে বিজেপির পক্ষ থেকে তাকে বাশ, লাঠি দিয়ে তাড়া করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন এই তৃণমূল প্রার্থী। দলীয় প্রার্থীর ওপর আক্রমণের ঘটনায় ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভূমিকা সহ নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্বয়ং তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তবে সুজাতা মন্ডলের উপর আক্রমন করা হলেও এবার রিপোর্টে কার্যত তৃণমূল প্রার্থীকে বিড়ম্বনার মুখে ফেলে দিলেন স্থানীয় পুলিশ সুপার। যেখানে নিজের রিপোর্টে তিনি উল্লেখ করেছেন, বিজেপি সমর্থকদের সঙ্গে বচসার পাশাপাশি স্থানীয় বাসিন্দাদের বাড়ির মধ্যে ঢুকে পড়েছিলেন এই তৃণমূল প্রার্থী। আর তারপরেই গ্রামবাসী এবং বিজেপি সমর্থকরা তাকে তাড়া করেন। আর তখন শুরু হয়ে যায় ধাক্কাধাক্কি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সুজাতা মন্ডল খাঁ আক্রান্ত হওয়ার পরেই কমিশনে একটি অভিযোগ দায়ের করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। যেখানে কেন্দ্রীয় বাহিনীর পক্ষ থেকে কেন এই রকম আচরণ করা হচ্ছে, তা নিয়ে তোলা হয়েছিল প্রশ্ন। এমনকি সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহণে বিজেপি বাধা দিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। তবে এবার এই গোটা বিষয়ে কমিশনে রিপোর্ট দিলেন স্থানীয় পুলিশ সুপার।

যেখানে বিজেপির বিরুদ্ধে তৃণমূল প্রার্থী অভিযোগ করলেও, গোটা ঘটনায় তৃনমূল প্রার্থীকেই অস্বস্তিতে ফেলে দিল পুলিশ সুপারের এই রিপোর্ট। জানা গেছে, রিপোর্টে বলা হয়েছে, সকাল 11 টা 15 মিনিটের সময়ে আরামবাগ বিধানসভা 263 নম্বর বুথের অন্তর্গত আরান্ডি মহল্লাপাড়ায় যান তৃনমূল প্রার্থী। সেখানে বিজেপি সমর্থকদের সঙ্গে তর্কাতর্কি করার পাশাপাশি স্থানীয় বাসিন্দাদের চৌহদ্দির মধ্যে ঢুকে পড়েন তিনি। আর তারপরেই ক্ষিপ্ত হয়ে গ্রামবাসী এবং বিজেপি সমর্থকরা তাড়া করেন।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

পরবর্তীতে আরান্ডি মুসলমান পাড়ায় যান তৃণমূল প্রার্থী। কিছুক্ষণ পর তিনি যখন আবার আরান্ডি মহল্লাপাড়ায় আসেন, তখন বিজেপি এবং তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়। একে অপরকে শুকনো মাটি তুলে ছুড়ে মারেন। যে ঘটনায় বেশ কয়েকজন আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছেন। তবে এর পাশাপাশি আর কোনো অশান্তি সেখানে হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ সুপার। অর্থাৎ এই রিপোর্টের মধ্যে দিয়েই স্পষ্ট যে, তৃণমূলের পক্ষ থেকে বিজেপির দিকে অভিযোগ করা হলেও, তা কমিশনে জমা দেওয়া রিপোর্টে বিন্দুমাত্র ধোপে টেকেনি।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, আরামবাগের তৃণমূল প্রার্থী যেভাবে ভোটগ্রহণ পর্বের মধ্যে হেনস্থার শিকার হয়েছেন, তা দেখে রীতিমত শোরগোল তৈরি হয়েছিল রাজ্য রাজনীতিতে। তৃণমূলের পক্ষ থেকে স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই গোটা ঘটনায় প্রতিবাদ করে বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন। স্বাভাবিকভাবেই কেন্দ্রীয় বাহিনী এবং নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়ে উঠতে শুরু করেছিল প্রশ্ন।

কিন্তু পুলিশ সুপারের পক্ষ থেকে কমিশনের কাছে যে রিপোর্ট দেওয়া হল, তাতে তৃণমূল প্রার্থী যে কিছুটা হলেও অস্বস্তির মুখে পড়ে গেলেন, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। গোটা ঘটনায় তৃণমূলের পক্ষ থেকে যতই বিজেপির দিকে অভিযোগ তোলা হোক, পরোক্ষে পুলিশ সুপারের জমা দেওয়ার রিপোর্টে প্রশ্নের মুখে পড়ে গেল তৃণমূল কংগ্রেস বলেই দাবি রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!