এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > আজ কৃষি বিল পাশ হওয়ার বিরুদ্ধে হতে চলেছে ভারত বনধ, জেনে নিন

আজ কৃষি বিল পাশ হওয়ার বিরুদ্ধে হতে চলেছে ভারত বনধ, জেনে নিন



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – প্রবল বিরোধ, বিতর্ক, বিক্ষোভের মধ্যে দিয়ে সংসদে পাস হলো কৃষি বিল। বিরোধীদের অভিযোগ এই বিল আইনে পরিণত হলে প্রতিবছর দেশের কৃষকদের কাছ থেকে ন্যূনতম সহায়ক মূল্য হিসেবে সরকার যে ফসল কিনে থাকে, সেই ব্যবস্থা এর ফলে বন্ধ হয়ে যাবে। পরিবর্তে বেসরকারি উদ্যোগ পতি তথা পুঁজিপতির হস্তগত হয়ে পড়বে ফসলের বাজার। এর ফলে প্রবল আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হবেন দেশের কৃষকরা। বিরোধীদের আরও অভিযোগ, এই আইন পাস হলে দেশের বিভিন্ন এলাকার কৃষি মান্ডিগুলি গুরুত্বহীন হয়ে পড়বে। কৃষি বিল নিয়ে বিরোধী রাজনৈতিক বর্গের পাশাপাশি, দেশের বিভিন্ন কৃষক সংগঠনগুলিও দেশের একাধিক স্থানে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে নেমেছেন। সম্প্রতি কেন্দ্রের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন কৃষক সংগঠনের পক্ষ থেকে আজ শুক্রবার ভারত বনধের ডাক দেওয়া হল।

সূত্র অনুযায়ী, আজকে কৃষকদের দেশব্যাপী এই হরতালে অংশ নিতে চলেছেন পাঞ্জাব, উত্তর প্রদেশ, হরিয়ানা, মহারাষ্ট্র সহ দেশের বেশ কিছু রাজ্যের অসংখ্য কৃষক। এ প্রসঙ্গে ভারতীয় কৃষক ইউনিয়ন সহ দেশের একাধিক কৃষক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়েছে যে, এই বিলের বিরুদ্ধে অভিযানে নামতে চলেছেন এই ইউনিয়নের সদস্য আপামর কৃষকেরা। এই প্রতিবাদ তথা বন্ধ সফল করতে দেশের মোট ৩১ টি কৃষক সংগঠন সম্প্রতি যুথ বদ্ধ হয়েছে।

আজকের এই অভিযানে পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, ছত্রিশগড়, উত্তরাখণ্ড মহারাষ্ট্র ,কর্ণাটক সহ দেশের বেশ কিছু কিছু রাজ্যের কৃষক সংগঠনগুলি ঐক্যবদ্ধভাবে চাক্কা জ্যাম করতে চলেছে। এমনটাই জানালেন ভারতীয় কিষান ইউনিয়নের মুখপাত্র ও সেইসঙ্গে উত্তরপ্রদেশের জনৈক শীর্ষ স্থানীয় কৃষক নেতা রাকেশ টিকাইত। কৃষক সংগঠনের এই আন্দোলন তথা হরতাল দেশের বহু বিরোধী নেতৃবর্গের বহুল সমর্থন লাভ করবে বলে মনে করছেন অধিকাংশ রাজনৈতিক বিশ্লেষক।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত কর্ণাটক, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু প্রভৃতি রাজ্যে কৃষকেরা বন্ধের সমর্থনে যুথবদ্ধ হতেই, তাদের পাশে এসে দাঁড়ালেন একাধিক ওলা চালক থেকে আরম্ভ করে ট্রাক ড্রাইভার সংগঠনগুলি। কেন্দ্র আনীত কৃষি বিলের প্রতিবাদে গতকাল ২৪ সে সেপ্টেম্বর থেকে পাঞ্জাযে শুরু হল রেল রোকো আন্দোলন। এর ফলে ফিরোজপুর রেলওয়ে বিভাগের বেশকিছু ট্রেনের চলাচল পুরোপুরি স্তব্ধ হয়ে পড়েছে।

পাঞ্জাব কৃষকদের এই প্রতিবাদ আন্দোলনকে সম্পূর্ণ সমর্থন জানালেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং। এ প্রসঙ্গে তিনি বললেন, ” বিলের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রাজ্য সরকার পুরোপুরি কৃষকদের সঙ্গে আছে।” তবে বন্ধ তথা প্রতিবাদের কর্মসূচিতে তিনি কোনভাবেই আইন শৃঙ্খলা ভঙ্গ না করতে ও সেই সঙ্গে করোনা সম্পর্কিত স্বাস্থ্যবিধি তথা সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে চলতে আবেদন জানালেন আন্দোলনরত কৃষকদের। এর সঙ্গেই তিনি হরতালের সময় যেন আইন-শৃঙ্খলা কোনভাবেই বিঘ্নিত না হয় সে ব্যাপারে বিশেষ নজর রাখতে বলেছেন। আবার, এই ধর্মঘটের ফলে রাজ্যের সাধারণ মানুষেরা যাতে কোন সমস্যার সম্মুখীন না হন, সেদিকেও দৃষ্টি দিতে বলেছেন তিনি।

অন্যদিকে কেন্দ্রীয় সরকার আনীত কৃষি বিলের প্রতিবাদে ২ মাস ব্যাপী ব্যাপক প্রতিবাদে নামতে চলেছে বিরোধী দল কংগ্রেস। কংগ্রেস তার এই বিশেষ প্রতিবাদী কর্মসূচি আজ থেকেই শুরু হতে চলেছে। আবার, কেন্দ্র আনীত কৃষি বিলের প্রতিবাদ জানিয়ে দু’কোটি কৃষকের স্বাক্ষর সমন্বিত প্রতিবাদপত্র ইতিমধ্যে কংগ্রেসের হাইকমান্ডের কাছে এসেছে। কৃষকদের নিকট হতে এই প্রতিবাদ পত্র পাবার পরই তারা আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়ার পরিকল্পনা নিয়েছেন। অন্যদিকে ভারতীয় কৃষক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে তাদের এই বন্ধের সমর্থনে দেশের সমস্ত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, দোকান বন্ধ রাখতে আবেদন করা হয়েছে দোকানদার তথা ব্যবসায়ীদের প্রতি।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!