এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > আবার কি হতে চলেছে নোটবন্দী? সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে জল্পনা তুঙ্গে

আবার কি হতে চলেছে নোটবন্দী? সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে জল্পনা তুঙ্গে



নোটবন্দী ভারতীয় ইতিহাসে এক উল্লেখযোগ্য অধ্যায়। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বিজেপির দাবি কালোটাকা উদ্ধারে ও দুর্নীতিতে নোটবন্দী এক বড়সড় পদক্ষেপ, অন্যদিকে বিরোধীদের দাবী নোটবন্দী আসলে নিজেই ভারতীয় ইতিহাসের সবথেকে বড় দুর্নীতি। এবার এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত খবর অনুযায়ী আবার ফিরে আসতে চলেছে নোটবন্দীর নতুন অধ্যায়। যা নিয়ে রীতিমত চাঞ্চল্য পরে গেছে ভারতীয় রাজনীতিতে।
ওই সংবাদপত্রের দাবি অনুযায়ী বাজারে আসতে চলা নতুন ৫০ ও ২০০ টাকার নোট দৃষ্টিহীন মনুষের ব্যবহারের উপযোগী নয়। দিল্লি হাইকোর্টে বিচারপতি গীতা মিত্তল ও সি হরিশঙ্করের এক যৌথ বেঞ্চ এই নির্দেশ প্রদান করে জানিয়েছেন দৃষ্টিশক্তিহীন মানুষ এই নোটগুলি ব্যবহার করতে গিয়ে বিভ্রান্ত হতে পারেন, এগুলির আকার ও আকৃতি পরিবর্তিত হওয়ার ফলে কোনটি কত টাকার নোট, তা স্পর্শ করে বোঝা যায় না। সেই সঙ্গে নোটে বিশেষ চিহ্নগুলি দৃষ্টিহীনদের জন্য রাখা হয়, এই নতুন নোটে সেগুলিও যথাযথ নেই। ফলে এতে দৃষ্টিহীনদের অধিকার ব্যাহত হচ্ছে। আর যেহেতু নাতন ৫০ ও ২০০ টাকার নোট খুব তাড়াতাড়ি বাজারে আসতে চলেছে তাই মানুষ আবার নোটবন্দীর মত অবস্থায় আবার পড়তে পারেন বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। এমনিতেই আগের নোটবন্দীর ফলে খুচরো ব্যবসা ও সাধারণ মানুষ প্রবল অস্বস্তিতে পড়েছে বলে অভিযোগ, এই পরিস্থিতিতে আবারো নোটবন্দীর সামনে পড়তে হলে ভারতীয় অর্থনীতির নাভিশ্বাস উঠতে পারে বলেও তাঁরা মনে করছেন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!