এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > দলেই বড়সড় বিদ্রোহের মুখে অধীর চৌধুরী, রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা

দলেই বড়সড় বিদ্রোহের মুখে অধীর চৌধুরী, রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা



পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে গঠিত ১১৬ জন সদস্যের এআইসিসির তালিকা থেকে বাদ পড়লেন বেশ কিছু কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা ও সক্রিয় কর্মী।এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য বীরভূমের জেলা কংগ্রেস সভাপতি সৈয়দ সিরাজ জিম্মি, মধ্য কলকাতার জেলা সভাপতি সুমন পাল, প্রবীণ নেতা তথা আইনজীবী অরুনাভ ঘোষ, জয়নগর-মজিলপুর পুরসভার চেয়ারম্যান সুজিত সরখেল। বাদের তালিকায় রইলো ছাত্র-যুবও। একেই প্রায় প্রতিদিন দলবদলের ফলে কংগ্রেস প্রায় নিশ্চিহ্ন তার ওপর পুরোনো নেতা-কর্মীদের বাদ দেওয়াতে বিক্ষুব্ধ কংগ্রেসের অন্দরমহল।

আরো নতুন খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এদিন কংগ্রেসের এক বিক্ষিব্ধ নেতা জানান, ”অধীররঞ্জন চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ দু’জন এই সদস্যপদের তালিকা তৈরি করেছেন। তাঁরাই নিজেদের পছন্দের লোকদের এখানে রেখেছেন। তাঁদের মধ্যে অনেকেই আছেন, যাঁরা কংগ্রেস দলটার সম্পর্কে ভালো করে কিছু জানেনই না। অনেকে আছেন, যাঁরা কোনও দিন মাঠে নেমে কাজও করেননি। দেখব, পঞ্চায়েতে তাঁরা কে, কী কাজ করেন। ” তালিকা তৈরির সময় ‘লেনদেন’-এরও অভিযোগ ওঠে অধীর বাবুর বিরুদ্ধে। এই ব্যাপারে মুখ খোলেন নি অধীর চৌধুরী ও আব্দুল মান্নান। রাহুল গান্ধীর কাছে অনেক নেতাই এ বিষয় অভিযোগ জানান এবং নতুন করে তালিকা খতিয়ে দেখার আবেদন জানানো হয় হাইকমান্ডের কাছে। এমনটাই কংগ্রেস সূত্রের খবর। জানা গেছে তালিকা প্রকাশের পর বহু নেতাই পঞ্চায়েত নির্বাচনের হাল ছেড়ে দিয়েছেন এবং বিধান ভবনে অধীর বাবুর দেখা মিললে নেতা-কর্মীরা তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভও দেখতে পারেন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!