এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > কংগ্রেস > ” অধিকারীরা না থাকলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজ মুখ্যমন্ত্রী হতে পারতেন না।” বক্তব্য অধীর চৌধুরীর।

” অধিকারীরা না থাকলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজ মুখ্যমন্ত্রী হতে পারতেন না।” বক্তব্য অধীর চৌধুরীর।



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – একসময় তৃণমূল দলের একজন দাপুটে যোদ্ধা ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর প্রচেষ্টায় রাজ্যজুড়ে তৃণমূল দলের জয়ধ্বজা উঠেছিল। কিন্তু সম্প্রতি বিভিন্ন কারণে দলের সঙ্গে তিনি সম্পর্ক অনেকটাই গুটিয়ে নিয়েছেন। দলে থেকেও বারবার দলহীন জনসংযোগ করতে দেখা যাচ্ছে তাঁকে।দলের অনুষ্ঠানে বড় একটা দেখা যাচ্ছে না তাঁকে। শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে যখন তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। সেই আবহে শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে কিছু প্রশংসা বার্তা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর।

আজ রবিবার সকালে শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে বেশ কিছু প্রশংসা করতে করতে শোনা গেল প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীকে। গণমাধ্যমে তিনি জানালেন যে, অধিকারীরা যদি না থাকতো তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজ মুখ্যমন্ত্রী হতে পারতেন না। তিনি জানালেন যে, নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়েই নন্দীগ্রামে আন্দোলন করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর এই বিশেষ অবদানের ফলেই মমতা বন্দোপাধ্যায় আজ মুখ্যমন্ত্রী হতে পেরেছেন। নন্দীগ্রামে আন্দোলনের শুরুতে মুখ্যমন্ত্রী কোথায় ছিলেন? তাঁর প্রশ্ন, তখন কোথায় ছিলেন ভাইপো-ভাইজী?

অন্যদিকে মুর্শিদাবাদের রাজনীতিতে গত কয়েক বছর ধরে অধীর চৌধুরীর প্রধান প্রতিপক্ষ শুভেন্দু অধিকারী। গত লোকসভা নির্বাচনে অধীর চৌধুরীকে পরাস্ত করতে যথেষ্ট চেষ্টাও করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। কিন্তু সেই শুভেন্দু অধিকারী সম্পর্কেই প্রশংসা করছেন কেন অধীর চৌধুরী? এর উত্তরে তিনি জানালেন যে, তিনি ফালতু কথা বলার লোক নন। শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে তাঁর রাজনৈতিক বিরোধীতা ছিল আছে থাকবে। রাজনৈতিকভাবে তাঁর সম্পর্কে বেশ কিছু অভিযোগ রয়েছে অধীর বাবুর। কিন্তু সত্যকে তো মেনে নিতেই হবে। নন্দীগ্রামে যখন আন্দোলন শুরু হয়েছিল তখন তিনি সেখানে গিয়ে দেখেছিলেন। তিনি দেখেছিলেন কিভাবে শুভেন্দু অধিকারী আন্দোলন করছিলেন। দরিদ্র মানুষরা, কৃষকেরা কিভাবে তাঁর ওপর ভরসা করেছিলেন? এই সব কিছু তিনি দেখেছিলেন বলেই, এ ব্যাপারে তিনি সত্যিটাই বলতে চান।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিকে শুভেন্দু অধিকারীর রাজনীতির ভবিষ্যৎ নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে রাজ্য রাজনীতিতে। শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামীরা অভিযোগ করেছেন যে, দলে তিনি তাঁর যোগ্য সম্মান পাননি। শুভেন্দু অধিকারী লড়াই করে উঠে এসেছেন রাজনীতিতে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্ব তিনি কেন মানবেন? অনেকে মনে করছেন, দলের প্রতি ক্ষোভ থেকে তিনি নতুন দল তৈরি করতে পারেন? কিংবা শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন? আবার তিনি বাম কংগ্রেসের সঙ্গেও যুক্ত হতে পারেন।

শুভেন্দু অধিকারীর আগামী পদক্ষেপ সম্পর্কে অধীর চৌধুরীকে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে, এ ব্যাপারে তিনি জানালেন যে, শুভেন্দু অধিকারী কোথায় যাবেন? কি করবেন? তা তাঁর জানা নেই। কিন্তু এ বিষয়ে তিনি নিশ্চিত যে, তৃণমূলে তিনি যোগ্য সম্মান পাননি। অধীর চৌধুরী জানালেন, মুখ্যমন্ত্রীকে সবসময় ঘিরে থাকা দক্ষিণ কলকাতার বেশকিছু মন্ত্রীদের নিয়ে সবসময় আদিখ্যেতা চলে। কিন্তু শুভেন্দু অধিকারী তা কখনোই পাননি। তিনি অভিযোগ করেছেন যে, মুখ্যমন্ত্রী তাঁকে দিয়ে কাজ করিয়ে নিয়েছেন। কাজ হাসিল হয়ে গেলে, তিনি আর তাঁকে দেখেন নি। কারো সঙ্গে যদি এমন ঘটে, ও তার যদি প্রকৃত যোগ্যতা থাকে তাহলে একদিন না একদিন তিনি অন্যপথে যাবেনই। এদিকে আজ মুর্শিদাবাদে শুভেন্দু অধিকারী যাবার কথা ছিল। মুর্শিদাবাদের জনৈক স্থানীয় নেতার কিছুদিন আগে মৃত্যু ঘটেছে। আজ তাঁর স্মরণ সভা।তবে এ বিষয়ে শুভেন্দু অধিকারীর কোন বক্তব্য রাখেন নি। তাঁকে ফোন করার চেষ্টা করা হলেও, ফোনে তাঁকে পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!