এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ষষ্ঠবার কি ফিরছে ব্রামফন্ট,কি মত ত্রিপুরার সমীক্ষকদের

ষষ্ঠবার কি ফিরছে ব্রামফন্ট,কি মত ত্রিপুরার সমীক্ষকদের

Priyo Bandhu Media


আর কিছুদিন পরেই ত্রিপুরায় বিধানসভা নির্বাচন। সুত্রের খবর ১৮ ফেব্রুয়ারি ৬০ টি আসনে নির্বাচন প্রক্রিয়া হবে। ত্রিপুরায় গত ২৫ বছর ধরে অর্থাৎ ১৯৯২ থেকে সিপিএম‌ নেতৃত্বাধীন বামফ্রন্ট এর হয়ে মানিক সরকার মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসছেন। ১৯৯৮ সালের ১১ মার্চ সুদীর্ঘ কাল ধরে তিনি মুখ্যমন্ত্রী শেষ বারের নির্বাচনে চতুর্থবার তিনি নির্বাচিত হন। নির্বাচন কমিশন সুত্রে খবর গত ৫ জানুয়রীতে প্রকাশিত চুড়ান্ত ভোটার তালিকায় ২৫লক্ষ ৬৯ হাজার ২১৬ জনের নাম আছে এর মধ্যে পুরুষ , মহিল ও তৃতীয় লিঙ্গের ভোটারের সংখ্যা যথাক্রমে ১৩ লক্ষ ৩ হাজার ৪২০ , ১২লক্ষ ৬৫ হাজার ৭৮৫ এবং ১১ জন। এদের মধ্যে ১০০ শতাংশেরই সচিত্র পরিচত পত্র আছে বলে সুত্রের খবর। তা ছাড়া ভোটার বৃদ্ধির হার এবছর ২.৫২ শতাংশ।
এক‌ বিশেষ সুত্রের খবর আসন্ন বিধানসভায় বামফ্রন্টের প্রধান প্রতিপক্ষ বিজেপি। এছাড়াও তৃণমূল এবং কংগ্রেস সব আসনেই‌ প্রার্থী দেবে বলে জানিয়েছে। যদিও ত্রিপুরায় বামের যে সংগঠন তা ভাঙার জন্য প্রয়োজনীয় সাংগঠনিক‌ শক্তি বাকি দলের‌ নেই তবে রাজনৈতিক মহল মনে করছে বিজেপি ভোটে কিছুটা ভাগ বসাবে।
সমীক্ষা থেকে সমীক্ষকরা সিদ্ধান্তে‌‌ এসেছেন যে এবছরও মানিক সরকার ত্রিপুরার মসনদ দখল‌ করার সম্ভবনা প্রবল। শেষ বিধানসভার ফলছিল ত্রিপুরার ৬০টি আসনের মধ্যে ৫১ টা ছিল বামেদের দখলে ৭টি ও ২ টি যথাক্রমে বিজেপি‌ ও‌ কংগ্রেসের দখলে। ৬০ আসনের বিধানসভায় তফশিলি জাতি এবং‌ উপযাতিদের জন্য যথাক্রমে ২০টি ও ৩০ টি আসন সংরক্ষিত। নির্বাচন কমিশনের দেওয়া শেষ তথ্যের ভিত্তিতে‌ ত্রিপুরার মোট ভোট কেন্দ্র ৩২১৪ টি। যদিও বামদল ত্রিপুরার মানুষের মনে যে যায়গায় আছে তথে প্রতিপক্ষকে যথেষ্ট কঠিন লড়াইয়ের সামনে দাঁড়াতে হবে । ফলাফলের দিকা তাকিয়ে গোটা ত্রিপুরা বাসী।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!