এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > শুভেন্দুর সভার আগে ছেঁড়া হল মুখ্যমন্ত্রীর ব্যানার, জাতীয় সড়ক অবরোধে উত্তপ্ত মালদা

শুভেন্দুর সভার আগে ছেঁড়া হল মুখ্যমন্ত্রীর ব্যানার, জাতীয় সড়ক অবরোধে উত্তপ্ত মালদা



পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রচার কার্যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এবং পরিবহনমন্ত্রীর ব্যানার ছিঁড়ে ফেলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে আচকাই উত্তাল হয়ে উঠলো মালদার হরিশ্চন্দ্রপুর। বুধবার মালদা জেলার ঐ অঞ্চলে পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে একটি জনসভার আয়োজন করা হয়েছিলো। সেই জনসভা উপলক্ষ্যে তুলসী হাটা মোড়ের কাছ থেকে হরিশ্চন্দ্রপুরের ভিতর পর্যন্ত রাস্তার দু’ধারে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে পোস্টার ও ব্যানার টাঙানো হয়। কিন্তু এদিনের জনসভার আগের দিন হঠাৎই এলাকার স্থানীয় নেতা কর্মীরা খেয়াল করেন কে বা কারা সমস্ত ব্যানার ও পোস্টার ছিঁড়ে ফালা-ফালা করে কেটে ওগুলি নষ্ট করে দেওয়ার চেষ্টা করেছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে হরিশ্চন্দ্রপুর ১ ও ২ নম্বর ব্লকের পরিবেশ অশান্ত হয়ে ওঠে। এই ঘটনার প্রতিবাদে স্থানীয় তৃণমূল নেতা ও ব্লক চেয়ারম্যান বিকাশ বন্দ্যোপাধ্যায়, তৃণমূল অঞ্চল সভাপতি তাজিমূল হোসেনের নেতৃত্বে কয়েক শ’ কর্মী ও সমর্থক হরিশ্চন্দ্রপুরের ৮১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে। এরফলে কার্যত যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। রাস্তার মাঝে আটকে পড়েন নির্বাচনের প্রশিক্ষণ নিতে আসা কর্মীদের একটি দলও। অল্প সময়ের মধ্যেই পিপলা মোড়ে চলা এই অবরোধ তুলতে যায় পুলিশ। এদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের ব্লক চেয়ারম্যান বিকাশ বন্দ্যোপাধ্যায় ব্যানার ও পোস্টার ছেঁড়ার ঘটনায় বিজেপি দলকে দোষী বলে অভিযোগ করে। তিনি অভিযোগের সুরেই বললেন, ” দিন কয়েক আগে বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এলাকায় সভা করে হিংসার উস্কানি দিয়ে গিয়েছেন। আর তার জেরেই বিজেপি-র কর্মী ও সমর্থকরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শুভেন্দু অধিকারীর পোস্টার ও ব্যানার ছিঁড়ে দিয়েছে।” অবশ্য সমস্ত অভিযোগ করেছে বিজেপি। তাদের মতে ইটা তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলে হয়েছে। অন্যদিকে পুলিশের তরফ থেকে জানা গিয়েছে গোটা ঘটনার তদন্ত চলছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!