এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে চাপে ফেলতে এবার আসরে রাজ্যের পার্শ্বশিক্ষকরা

রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে চাপে ফেলতে এবার আসরে রাজ্যের পার্শ্বশিক্ষকরা



পঞ্চায়েত নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের কথাই উলটপুরাণ হলো।প্রথমে তারা জানিয়েছিলেন নির্বাচনে পার্শ্বশিক্ষকরা প্রার্থী হতে পারবেন না,পরে তারাই গাইলো অন্যসুর।বুধবার জানালেন যেসব পার্শ্বশিক্ষকরা মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন তাদের প্রার্থী হতে সমস্যা হবে না।ফলে স্বস্তিতে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া পার্শ্ব শিক্ষকরা।অধিকারের লড়াই এ তাদের বিজয় ঘোষিত হল এমনটাই মনে করছেন তারা।তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থিত পার্শ্বশিক্ষক সংগঠন জানিয়েছেন  জোর করেই পার্শ্ব শিক্ষকরা প্রার্থী হয়েছেন এবার নির্বাচন কমিশনের উপর চাপ সৃষ্টি করতে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

উক্ত বিষয়ে আলোকপাত করতে মুখ খুললেন পার্শ্বশিক্ষক সমিতির সভাপতি রমিউল ইসলাম।তিনি জানিয়েছেন তিনি যা চেয়েছিলো তার থেকে বেশি দিয়েছেন সরকার।পার্শ্ব শিক্ষকদের নমিনেশন ফাইল করতে দেওয়া হোক,ভোটে দাঁড়াতে দেওয়া হোক এমনটাই চেয়েছিলেন তিনি।পাঁচ বছরের লিয়েন দিয়ে  রাজ্যসরকার তার থেকে বেশি পার্শ্ব শিক্ষকদের কথা ভেবেছেন।এছাড়া তিনি আরো জানান যে,নির্বাচন কমিশনের কাজে তারা অত্যন্ত মর্মাহত।যে পার্শ্ব শিক্ষকরা জোর করে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন তারাই শুধু প্রার্থী হতে পারছেন।আগে যদি তাদের বারণ করা না হতো তাহলে এই সংখ্যাটাই হাজারের কাছাকাছি হতো।অন্যদিকে বঙ্গীশ শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী সমিতির  সহ সাধারণ সম্পাদক স্বপন মন্ডল এর বক্তব্য নির্বাচনে দাবার ঘুঁটির মতো ব্যবহার করা হচ্ছে পার্শ্ব শিক্ষকদের।তাদের দাবী ছিল নির্দিষ্ট বেতনক্রম,শিক্ষকদের সমান মর্যাদা।তাদের নির্বাচনে প্রার্থী করে উক্ত বিষয়গুলো থেকে তাদের মন অন্যদিকে ঘুরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে শুধুমাত্র তাদের পরিবারের কাছ থেকে অতিরিক্ত কিছু ভোট পাওয়ার লোভে।এটা একটা রাজনৈতিক চাল ছাড়া অন্যকিছু ভাবতেই পারছেন না স্বপন বাবু।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!