এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেয়রের বিবাহবিচ্ছেদের মামলা, কি বলল আদালত?

মেয়রের বিবাহবিচ্ছেদের মামলা, কি বলল আদালত?



মুক্তি চাইছেন মেয়র। কয়েকদিন আগেই খবরটি সামনে এসেছিলো আর তাতেই রাজনৈতিকমহল তোলপাড় হয়ে গিয়েছিলো। প্রশ্ন উঠেছিল কেন মেয়র ডিভোর্স চাইছেন। আজ সেই মামলার শুনানি ছিল। কলকাতার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের আইনজীবী প্রতীমপ্রিয় দাশগুপ্ত আজ আদালতে জানান যে স্ত্রী রত্না চ্যাটার্জি অত্যাধিক খরচ করেন। সামাল দিতে পারছেন না মেয়র। তাই আইনি বিচ্ছেদ চাইছেন। এদিন তিনি আরো জানান যে ২০০৬ সাল থেকেই স্ত্রী রত্নার সঙ্গে বনিবনা হচ্ছিল না প্রথমে বিছানা আলাদা হয় দুজনের। তারপর শোভনের বাড়ি ছেড়ে বাপের বাড়ি চলে যান রত্না।ক্রমশ দু’জনের মধ্যে দূরত্বও বাড়তে থাকে। অন্যদিকে বিচ্ছেদের আবেদনে কলকাতার মেয়র জানিয়েছেন যে তিনি স্ত্রীর প্রতি সব কর্ত্যব্যই পালন করেছিলেন, স্ত্রীকে খরচ করার জন্য যথেষ্ট টাকাও দিতেন এমনকি বাইরে গেলেও স্ত্রীর খরচের জন্য আলাদা করে টাকা রেখে যেতেন মেয়র। শুধু ব্যয়বহুল জীবনযাপনই নয়, রত্না চ্যাটার্জি তাঁর অনুমতি না নিয়েই বহু ক্ষেত্রে অন্যের জন্য রাখা চেক নিজেই ভাঙিয়ে নিয়েছেন। এসব আর সহ্য করতে পারছেন না শোভনবাবু তাই ডিভোর্স চাইছেন। তবে ১৩ বছরের মেয়েকে নিজের কাছে রাখতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছেন তিনি। তবে তাঁর ছেলে প্রাপ্তবয়স্ক তাই তার কথা আলাদা করে কিছু লেখেন নি। প্রসঙ্গত আগামী মাসের ১৩ তারিখ আদালতের কাছে লিখিত আবেদন জানাবেন মেয়রের স্ত্রী রত্না চ্যাটার্জি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!