এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়কে ঘিরে দ্রুত সমীকরণ বদলাচ্ছে ঘাসফুল শিবিরের অন্দরে

ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়কে ঘিরে দ্রুত সমীকরণ বদলাচ্ছে ঘাসফুল শিবিরের অন্দরে



সিপিএম সাংসদ ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যাকে অশৃঙ্খলা এবং অর্থনৈতিক কাজকর্মের অভিযোগে দল থেকে বহিষ্কারের পর তিনি তৃণমূলের জয়গান গেয়েছিলেন আর কাজ হয়েছে । এদিন একটি জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী তাঁর প্রতি তৃণমূলের সুর কিছুটা নরম। প্রসঙ্গত, বান্ধবীকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে তা নাকচ করার অভিযোগও ওঠে ঋতব্রতর বিরুদ্ধে। বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নাম সিআইডি। এমতাবস্থায় ঋতব্রত তৃণমূলের গুনগান করতে থাকেন নানা জায়গায় এর পর তৃণমূল কিছুটা দুর্বল দুর্বল হয়ে পরে ঋতব্রতর উপর।অন্যদিকে জল্পনা বাড়িয়ে এদিন ঋতব্রত জানান, ”রাজনীতিতে থাকব। তবে আমি তো আর হিন্দুত্বের রাজনীতি করতে পারব না।” ওই পোর্টালে দাবি করা হয়েছে যে, তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ গুলি সম্পূর্ণভাবে খতিয়ে না দেখা পর্যন্ত পুরোপুরিভাবে তাঁকে দলীয় ছাতার তলায় আনতে পারছে না দল এমনটাই নাকি জানা গেছে এবং ঋতব্রতের সঙ্গে দলের সেতুবন্ধনের কাজ এখন প্রায় শেষ পর্বে। ওই সংবাদমাধমের দাবি দলের এক গুরুত্বপূর্ণ সাংসদ-নেতার মধ্যস্থতায় দলের এই মনোভাব জানেন ঋতব্রতও। পাশাপাশি ওই পোর্টালে দাবি করা হয়েছে যে দলের এক শীর্ষ জানিয়েছেন যে, ”ঋতব্রতের সঙ্গে নিয়মিতই কথা হচ্ছে। রাজ্যসভায় তৃণমূলের সঙ্গে তাঁর কাজকর্মের যথেষ্ট সাযুজ্য রয়েছে।” অন্যদিকে ঋতব্রতও মেনে নিয়েছেন যে তাঁর সাথে তৃণমূল নেতৃত্বের যোগাযোগ আছে। তিনি বলেন, ”বিভিন্ন বিষয়ে কথা তো হয়।” তবে কি হয় তা ভবিষ্যৎই বলবে।যদিও এই খবরের সত্যতা বা সূত্র সম্পর্কে ওই ওয়েব পোর্টালে কিছু লেখা নেই, প্রিয়বন্ধু বাংলার তরফেও এই খবরের সত্যতা যাচাই করে দেখা সম্ভব হয় নি। এই প্রবন্ধ সম্পূর্ণরূপে ওই পোর্টালে প্রকাশিত খবরের পরিপ্রেক্ষিতে করা, কোনোভাবেই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত নয় বা কোনো ব্যক্তি বা দলের সম্মানহানির উদ্দেশ্যে রচিত নয়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!