এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > রাহুল গান্ধীর সঙ্গে লড়াইয়ে পিছিয়ে পড়ছেন মোদী, দাবি বিজেপির একদা জোটসঙ্গীর

রাহুল গান্ধীর সঙ্গে লড়াইয়ে পিছিয়ে পড়ছেন মোদী, দাবি বিজেপির একদা জোটসঙ্গীর



এককালের বিজেপির জোটসঙ্গী শিবসেনা সাংসদের রাহুল-প্রীতিতে হতবাক বিজপিশিবির। রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে জানা যায়, বিজেপির সঙ্গে একসময় সম্পর্ক ভালো ছিল শিবসেনার। কিন্তু শিবসেনার নেতৃস্থানীয়রা সুযোগ পেলেই বিজেপির বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছিল। ফলে বনিবনা হচ্ছিলো এনডিএ-র প্রধান শরিক বিজেপির সঙ্গে ছোট শরিক শিবসেনার।তার জেরেই শিবসেনা বিজেপির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার সিদ্ধান্ত নেয়। আর এখন সেই শিবসেনাই করছে রাহুল-বন্দনা। শিবসেনার সাংসদ সঞ্জয় রাউত বলেন, কংগ্রেস সংখ্যাগরিষ্টতা না পেলেও কর্ণাটকে হবে বৃহত্তম দল। কারণ মানুষ রাহুল গান্ধীর অনুরাগী। তাঁর সঙ্গে লড়াই-এ অনেক পেছনে মোদীজি। তাই তিনি ভোট প্রচারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদেরও নামিয়েছেন। সঞ্জয় রাউত আশা রেখেছেন কর্ণাটকে জয় হবে কংগ্রেসেরই।পদ্মফুল ফোটা সেখানে সম্ভবই না। কর্ণাটকে বর্তমানে চলছে ধুলোঝড়। সেটা থামলেই কর্নাটকে হতে চলেছে রাহুল গান্ধীর জয়জয়কার।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

প্রসঙ্গে তিনি আরো জানান যে শিবসেনা বিজেপির বোঝাপড়া মহারাষ্ট্র বিধান পরিষদে থাকলেও সেটা কখনোই নিশ্চিত করবে না আগামী লোকসভা ও বিধানসভার ভোটে বিজেপির সঙ্গে তাঁদের বনিবনার দিকটি। দেশজোড়া ভক্ত রাহুল গান্ধীর। সেটার একটা প্রভাব আছে একথা অস্বীকার করা যায় না। বিজেপি শাসিতা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের কর্নাটক বিধানসভার ভোটে নামানো হয়েছে শুধুমাত্র রাহুল গান্ধীর থেকে পিছিয়ে পড়ছেন বলে। অন্যদিকে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞের একাংশ মনে করেছেন যে এটি করে বিজেপি তাঁর দৈনতারই বিজ্ঞাপন করছে। সঞ্জয় রাউতও এই মতামতে স্বীকৃতি দিয়ে বলেছেন,এরফলে কেন্দ্র এবং রাজ্য উভয় জায়গাতেই ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে প্রশাসনিক কাজ। দেশবাসীরা কিন্তু চোখে আঙুল দিয়ে বসে নেই। এদিন তিনি বিজেপির একপ্রকার সমালোচনা করেই বলেন যে রাজ্যের নেতাদের প্রতি ভরসা নেই বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের। তাই জন্যেই মোদীজি প্রশাসনিক কাজ লাটে তুলে ভাষণ দিয়ে বেরাচ্ছেন একটার পর একটা সভায়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!