এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পঞ্চায়েতের টিকিট নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর তুমুল ক্ষোভের মুখে পার্থ চট্টোপাধ্যায়

পঞ্চায়েতের টিকিট নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর তুমুল ক্ষোভের মুখে পার্থ চট্টোপাধ্যায়



আর ও একবার চলে এল পঞ্চায়েত ভোট এবং সেই ভোটে টিকিট পাওয়াকে ঘিরে চরমে উঠল তৃণমূলের অর্ন্তদন্দ এবং নবান্নে বসে থেকে ও তার জানান পেলেন তৃনমূল নেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়।
মূর্শিদাবাদের চোপড়া বিধানসভা এর অর্ন্তগত মহেশপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সুমনা বিশ্বাসকে টিকিট না দেওয়াকে ঘিরেই এই দলীয় দন্দ। অবশ্য এ কথা সরাসরি দিদির কানে গেলে দিদি সরাসরি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সাথে যোগাযোগ করে এবং তা নিয়ে তাকে খানিকটা বকাবকি ও করে তিনি বলেন,” জয়ী পঞ্চায়েত প্রধান কেন টিকিট পাবেন না?”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

তার ফল অবশ্য সুমনা বিশ্বাসের জন্য সুফলদায়কই হয়েছে।নেত্রীর ধমক খেয়ে পার্থবাবু মুর্শিদাবাদের জেলা সভাপতিকে  নির্দেশ দেন ওই জয়ী পঞ্চায়েত প্রধানকেই এবারের প্রার্থী করতে হবে।প্রসঙ্গত, কদিন আগেই ইরাকে অপহৃত যে ৩৭ জন ভারতীয়কে হত্যা করেছে জঙ্গীরা তার মধ্যে রয়েছে মুর্শিদাবাদের মহেশপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের এক বাসিন্দা। শুক্রবার মৃতের স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে তাঁকে সাহায্যার্থে নবান্নে নেত্রীর দ্বারস্থ হয়েছিলেন সুমনা বিশ্বাস। নবান্নে সূত্রে খবর, এরপর নেত্রীর কাছে অভিযোগের সুরে সুমনাদেবী বলেন, আমি তো নির্বাচিত পঞ্চায়েত প্রধান। তাহলে আমাকে প্রার্থী করা হল না কেন? এরপরই মেজাজ হারান নেত্রী । সঙ্গে সঙ্গে ফোন করেন পার্থবাবুকে। যদিও দলীয় কোন্দলের বিষয়ে মুখ খুলতে নারাজ তৃণমূল কংগ্রেসের মুর্শিদাবাদ জেলা সভাপতি। এই নিয়ে মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি সুব্রত সাহা বলেছেন, “এই বিষয়ে আমি কোনও মন্তব্য করব না।”।কিন্তু এর সাথে এ কথা ও স্পষ্ট যে অর্ন্তদন্দ সম্বন্ধে তৃনমুল নেত্রী ও যথেষ্ট অবগত। যদিও তৃনমূল কর্মীরা এ সম্বন্ধে মুখ খুলছেনা।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!