এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > আমাদের শরীর নিজেই একটি রহস্যের আধার, জেনে নিন আশ্চর্য জনক কিছু তথ্য!

আমাদের শরীর নিজেই একটি রহস্যের আধার, জেনে নিন আশ্চর্য জনক কিছু তথ্য!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –আমরা নিজেদের শরীরকে সারা জীবন বয়ে নিয়ে চলি। সুখে- দুঃখে, ভালোয়-মন্দে, ঘুমে-জাগরণে, সর্বক্ষণ শরীর আমাদের নিত্য সঙ্গী। আমরা সত্তা, আত্মা, চেতনা, যাই বলি না কেন, যতক্ষণ শরীর আছে ততক্ষণই সব আছে। অথচ, আমরা নিজেদের শরীরকে কতটুকুই বা চিনি? মনুষ্য দেহ পৃথিবীর সবচেয়ে জটিল মেশিন। চলুন জেনে নিই মানুষের শরীর সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য যা জানলে আপনারা তাজ্জব হয়ে যাবেন।

 

১. আমাদের চমড়া আমাদের শরীরকে ব্যাক্টেরিরার হাত থেকে রক্ষা করে। কিন্তু আশ্চর্যের কথা হলো যে আমাদের চামড়ায় ১০০০ রকমের ব্যাকটেরিয়া বাস করে। তাই তে আমাদের চামড়ার কোষ ২৮ দিন পর পর নিজেকে নতুনভাবে নতুন করে তোলে।

২. আমাদের শরীরে ৬০০-র বেশি পেশি আছে। আমাদের চোয়ালের পেশি সব চেয়ে বেশি শক্ত হয় আর আমাদের কানের পেশি সবচেয়ে নরম।

 

৩. এক জন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের ২০০০-৪০০০ স্বাদ কুড়ি আছে।

৪. আমাদের শরীরে শত শত ধমনী একে অন্যের সাথে জুড়ে রয়েছে। মজার ব্যাপার হলো, সেই শিরা-উপশিরাকে যদি একসাথে সোজা করে জোড়া যায় তবে তার দৈর্ঘ্য ৬০,০০০ মাইল হয়!

 


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

৫. আমাদের জিভ দিয়ে যে লালা ঝরে তা যদি একত্রে কোনো পাত্রে ধারণ করতে পারি তবে দেখা যাবে এক বছরে দুটি বাথ টাব সম্পূর্ণ ভর্তি হয়ে গেছে।

৬. সাধারণ ক্ষেত্রে আমাদের হার্ট সারাদিনে ১০০০০০ বার বিট করে। যার অর্থ, সারাদিনে ২০০০ গ্যালন রক্ত পাম্প হয়ে সারা দেহে সরবরাহ হয়!

 

৭. রাতের তুলনায় দিনের বেলায় আমাদের দেহের উচ্চতা একটু বেশি হয়। এর কারণ হলো, রাতের দিকে আমাদের হাড়ের কার্টিলেজ কিছুটা সংকুচিত হয়।

৮. আমাদের ব্রেইন শরীরের ব্যাথা অনুভব করায়, কিন্তু আশ্চর্যের ব্যাপার হলো, ব্রেইনের নিজের কোনো ব্যাথা অনুভূত হয় না।

৯. বিজ্ঞানীরা বলেন, আমাদেরকে ব্রেইন এতোটা বিদ্যুত উৎপন্ন করতে পারে যার সাহায্যে একটি ইলেক্ট্রিক বাল্বকে জ্বালানো সম্ভব।

 

১০. স্বাভাবিক সময়ের থেকে ভয়ের সময় আমরা স্বাভাবিকের তুলনায় অন্তত ১২% বেশি শারীরিক শক্তি ধারণ করতে পারি। ভয়ের সময় আমাদের যন্ত্রণা বোধের ক্ষমতা অনেকটা হ্রাস পায়। তাই সেই সময় আমরা স্বাভাবিকের তুলনায় অনেকটাই ভারী বস্তু তুলতে পারি।

কী ভাবছেন বন্ধুরা? অদ্ভুত না? ভেবে দেখেছেন, মানুষ তার জ্ঞান দিয়ে চন্দ্রযান আবিষ্কার করে ফেললো, কিন্তু নিজের শরীরের জন্য এক ফোঁটা রক্ত তৈরি করতে সক্ষম হলো না!

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!