এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মৃত দিলদারের ‘দখল’ নিতে তাঁর বাড়িতে দলীয় পতাকা উড়িয়ে দিল শাসকদল

মৃত দিলদারের ‘দখল’ নিতে তাঁর বাড়িতে দলীয় পতাকা উড়িয়ে দিল শাসকদল



মৃত দিলদারের ‘দখল’ নিতে তাঁর বাড়িতে দলীয় পতাকা উড়িয়ে দিল শাসকদল। সিউড়ি থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থিত কড়িধ্যায় বাড়ি ফেরার পথে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন বছর ৩৯-এর দিলদার খান। ইতিমধ্যেই নিহত দিলদার কোন দলের সমর্থক তা নিয়ে চাপা বিতর্কও শুরু হয়ে গেছে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে। তবে দিলদারের বাড়ির দিকে এগিয়ে দেখা গেছে তাঁর বাড়ির সামনে উড়ছে তৃণমূলের দলীয় পতাকা। দিলদারের গুলিবিদ্ধ হওয়ার প্রসঙ্গে তাঁর বাবা তহিদ খান জানান, ”বরাবর তৃণমূল করি। দিলদারও তাই করত। কাল বৌমার (মরিয়ম বিবি) সঙ্গে মনোনয়ন দিতে যাওয়ার সময় ওকে মেরেছে বিজেপির লোকেরা।” এদিন বেলা সাড়ে ১১ টা নাগাদ দিলদারের বাড়ির সামনে নজরে আসে এক জন ডিএসপি, দু’জন সাব-ইনস্পেক্টর-সহ বিশাল বাহিনী। তারা জানান, ”কালকের ঘটনার পরে এখানে টহল দিতে এসেছি।”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

স্থানীয় বিজেপি নেতা শ্যামসুন্দর গড়াইয়ের বিরুদ্ধে সিউড়ি থানায় অভিযোগ দায়ের করে দিলদারের পরিবার। এমনকি ঘটনার জেরে শ্যামসুন্দরের হাতে গুলি লেগে তিনি বর্ধমান মেডিক্যালে চিকিৎসাধী ছিলেন এদিন তাঁকে ও আরো কয়েকজন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে বিজেপির জেলা সভাপতি রামকৃষ্ণ রায় মন্তব্য করেন, ”বিরোধী দলের কর্মী খুন হলে বিপাকে পড়়তে হতে পারে। সত্য যাতে সামনে না আসে, তাই শাসক দলের তত্‍পরতায় এত পুলিশ, এত পাহারা।” এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল। এদিন সিউড়ির তৃণমূল বিধায়ক অশোক চট্টোপাধ্যায় জানান, ”বিজেপি-র হামলায় আমাদের কর্মী দিলদার খুন হয়েছেন। ওঁর পরিবারের পাশে রয়েছি। ওঁর স্ত্রীর কর্মসংস্থান নিয়েও ভাবা হচ্ছে।” যদিও দিলদার তুমি কার? এই বিতর্ক এখনও মেটেনি।কেননা প্রথমে দিলদারবাবুর বাবা দাবি করেন যে তাঁর ছেলে বিজেপি কর্মী ,এবং বিজেপির তরফ থেকে জানানো হয় যে মৃত দিলদার শেখ বিজেপির সংখ্যালঘু সেলের সাধারণ সম্পাদক। অন্যদিকে অনুব্রত মন্ডল জানান মৃত দিলদার বাবু তাদের কর্মী। এরপর সাংবাদিক সম্মেলন করেন অনুব্রত বাবু। সেখানে তাঁর পাশে বসে দিলদারবাবুর বাবা জানান যে তাঁর ছেলে তৃণমূলের কর্মী আর বিজেপি খুন করেছে তাঁর ছেলেকে। 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!