এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ভুলের পর ভুল, দলটাকেই বিজেপির হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে, পার্টি কর্মীর পত্রবোমা শীর্ষনেতৃত্বকে

ভুলের পর ভুল, দলটাকেই বিজেপির হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে, পার্টি কর্মীর পত্রবোমা শীর্ষনেতৃত্বকে



পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের বাম নেতাদের প্রায়শই সমালোচনা করে বলে থাকেন বামপন্থী নেতারাই এখন বিজেপি দলের সদস্য পদ গ্রহণ করেছেন। এবার সেই অভিযোগের সমর্থন করলেন খোদ বাম দলের শরিক সিপিএম এর দলীয় কর্মী। শুধু তাই নয় ঐ কর্মী সম্প্রতি সিপিএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রকে অভিযোগ জানিয়ে চিঠিও লিখেছেন। অভিযোগ জানিয়ে তিনি চিঠিতে বললেন বর্তমানে অতিরিক্ত সহনশীলতা দেখাতে গিয়ে পার্টির ক্ষতি হচ্ছে। দল ভেঙ্গে টুকরো টুকরো হয়ে যাচ্ছে। এই অবস্থা চলতে থাকলে অল্প দিনেই দল রাজ্য থেকে নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে তা আলাদা করে বলার দাবি রাখেনা। দলকে সাধারণ মানুষের কাছে গ্রহণীয় করে তোলার জন্যে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব কোনোরকম কার্যকরী পদক্ষেপই গ্রহণ করছেন না।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

দলীয় ঐ কর্মীর অভিযোগপত্রটি- তে সিপিএম দলের রাজ্য সম্পাদকের অল্প কদিন আগের সাংবাদিক সম্মেলনের দেওয়া বিবৃতির উল্লেখ আছে। যেখানে দলের রাজ্য সম্পাদক বলেছেন, এ রাজ্যে গণতন্ত্র ভেঙে পড়েছে। তাই তিনি দলীয় সকল কর্মী ও সমর্থককে গণতন্ত্র রক্ষার আবেদন জানিয়ে আহ্বান করেছেন। কিন্তু রাজ্য সম্পাদকের বিবৃতি এবং দলের নেওয়া পদক্ষেপের মধ্যে আকাশ-পাতাল পার্থক্য লক্ষ্য করা যাচ্ছে। গণ আন্দোলন সংগঠিত করার কোনো ইতিবাচক ভূমিকা নেই দলের পক্ষ থেকে। এমনকি দলীয় কর্মীদের কোনো দলের আগামী কার্য পধতি সম্পর্কেও কোনো অবহিত করা হয়নি। চিঠিতে আরো বলা হয়েছে দলের পক্ষ থেকে যে সংবেদনশীলতার কথা বলা হচ্ছে সেই কথার ভিত্তিতে কী দলীয় কর্মীদের এইভাবে দলের সদস্য হিসেবে আটকে রাখা যাবে! সেই বিষয়ে যথেষ্ট সংশয় আছে। অতিরিক্ত সহনশীলতা দেখানোর ভুল করে সরকারের পতনের পথ প্রশস্ত করেছিল সিপিএম। তারপরেই রাজ্যে চুড়ান্ত পরাজয় বামেদের। এখনও সেই সহনশীলতা দেখাতে গিয়ে বামকর্মীদের বিজেপির হাতে তুলে দিচ্ছে নেতৃত্ব। দলীয় এই কর্মী তাই সিপিএম রাজ্য নেতৃত্বের কাছে আর্জি জানিয়ে বললেন, “এবার একটু ভাবুন। দলকে সঠিক পথ দেখান। তবেই টিকবে দল। তা না হলে সিপিএম নামক পার্টিটা সত্যিই সাইনবোর্ডে পরিণত হবে।” এটা একজন দলীয় কর্মী নয় সকল দলীয় কর্মীর একান্তই মনের কথা। এবার সিপিএম নেতৃত্বের নিজেদের অস্বস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে ভাবনা করার সময় এসে গেছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!