এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > তৃণমূলকে সমর্থন নয়, বড় শাস্তির মুখে ৬ সিভিক ভলেন্টিয়ার

তৃণমূলকে সমর্থন নয়, বড় শাস্তির মুখে ৬ সিভিক ভলেন্টিয়ার



ছ’মাসের জন্য সাসপেন্ড করা হল ৬ সিভিক ভলান্টিয়ারকে, কারণ তাঁরা রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলকে নয়-সমর্থন করে বিজেপি ও কংগ্রেসকে অভিযোগ এমনটাই উঠেছে। জানা গেছে বালুরঘাট ব্লকের জলঘর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত চককাশী, গুপিনগর, জলঘর ও গঙ্গাসাগর এই চার গ্রামের এক মহিলা সিভিক ভলান্টিয়ার সহ আরো পাঁচজনকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। এদের মধ্যে সবার পরিবার হয় বিজেপির ,না হয় কংগ্রেসের সমার্থক। জানা গেছে এদের মধ্যে একজনের কাকিমা বিজেপির হয়ে পঞ্চায়েতে প্রার্থী হয়েছেন। জানা গেছে গত ১ লা মে যখন তাঁরা কাজে যোগ দিতে যান তখন তাঁদের নোটিশ দিয়ে বলা হয় যে কর্তব্যরত অবস্থায় তাঁরা রাজনৈতিক দলের সংস্পর্শে এসেছেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

তাই ছ’মাসের জন্য কাজ থেকে সাসপেন্ড করা হলো তবে ছ’মাস পর তাঁরা আবার আবেদন করতে পারবেন তখন আবার তাঁদের কাজে ফিরিয়ে নেওয়া হবে। এর ফলে বিপদে পড়েছেন সিভিক ভলান্টিয়ারদের পরিবারগুলি।এদিকে বিরোধীরা দাবি করেছেন যে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকেও নাকি সিভিক ভলান্টিয়ারদের তৃণমূলের পাশে থাকার জন্য ফরমান জারি করা হয়েছে। এনারা সেই ফরমান না মানায় এদেরকে সাসপেন্ড করা হলো। নির্বাচনে দল টিকিট না দেওয়ায় দল ছেড়ে কংগ্রেসে যোগদানকারী স্থানীয় কংগ্রেস নেতা সুশীল কুমার মণ্ডল জানান যে,তাঁদের পরিবার তৃণমূল নয় অন্য রাজনৈতিক দলকে সমর্থন করে সেই অপরাধে ওই ৬ সিভিককে সাসপেন্ড করা হলো।গণতন্ত্রকে ধ্বংস করা হচ্ছে। এছাড়া তিনি আরো বড় অভিযোগ করে জানান যে বিরোধীদের বাড়িতে ঝামেলা হলেও পুলিশ এসে নভোট না মেটা পর্যন্ত বাইরে থাকতে বলছে। এদিকে বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন ক্ষিণ দিনাজপুর জেলা বিজেপি-র সভাপতি শুভেন্দু সরকার। তিনি জানান যে তাঁদের এক প্রার্থীর ভাইপো সিভিক ভলান্টিয়ার। তাঁকেও সাসপেন্ড করা হয়েছে। এদিকে পুলিশ এই নিয়ে কিছু বলতে চাননি। অন্যদিকে ওই সিভিক ভলেন্টিয়ারের পরিবারের লোকজন কোনো মন্তব্ব্য করেননি। মুখ খোলেননি তৃণমূলের নেতারাও।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!