এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > তৃণমূলকে পঞ্চায়েতে আটকাতে মাস্টারস্ট্রোক বিজেপির

তৃণমূলকে পঞ্চায়েতে আটকাতে মাস্টারস্ট্রোক বিজেপির



তৃণমূলকে পঞ্চায়েতে আটকাতে মাস্টারস্ট্রোক বিজেপির।এদিন জানা গেছে যে তৃণমূলকে পঞ্চায়েতে মাত দিতে বড় পদক্ষেপ নিলো বিজেপি। নতুন-পুরোনো দন্দ্ব,তাছাড়া গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, বর্তমানে পঞ্চায়েতের টিকিট না পাওয়া নিয়ে তৃণমূলে বিক্ষুব্ধ তৃণমূলীদের সংখ্যাটা বড় বেশি হয়ে উঠেছে আর এদিকেই নিজেদের দলে টেনে নিয়ে তৃণমূলকে পাল্টা দিতে চাইছে বিজেপি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

বিজেপির অন্দরে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে যে এবার পঞ্চায়েত ভোটে বিক্ষুব্ধ তৃণমূলীদের দলীয় প্রতীক দিতে চলেছে বিজেপি।আসন্ন পঞ্চায়েতে দল বদলের জন্য তৃণমূলের নেতারা যোগাযোগ করছেন বিজেপি নেটদের সাথে কেউ কেউ আবার নির্দল হয়ে দাঁড়াতে চেয়েছেন আর পরে বিজেপিতে আসতে চেয়েছেন এছাড়া কেউ কেউ প্রতীক চেয়ে বিজেপি-র কাছে আবেদনও করেছেন।আর তাই দল থেকে ভাবনা চিন্তা করা হচ্ছে। প্রস্তাব উঠেছে যে যেখানে দল প্রার্থী দিতে পারবে না, শুধুমাত্র সেখানেই বিক্ষুব্ধ তৃণমূলীদের প্রতীক দেওয়া হোক। সেক্ষেত্রে শর্তও দেওয়া হতে পারে যে,শর্ত এই যে বিক্ষুব্ধ তৃণমূল কর্মীকে বিজেপি-র হয়ে কাজ করার কথা লিখিতভাবে জানাতে হবে।এই নিয়ে রাজ্য বিজেপি-র সাধারণ সম্পাদিকা দেবশ্রী চৌধুরি বলেন, “পঞ্চায়েত হল গ্রামীণ স্তরের মানুষের অধিকার রক্ষার লড়াই। সেই অধিকারের জন্য আমরা সমস্ত রকম অপশন খোলা রাখব। তাঁদের অধিকার যাতে “বর্গীরা” এসে ছিনিয়ে না নেয়, তারজন্য সব দরজা খোলা থাকবে।”এদিকে জল্পনা শুরু হয়ে গেছে যে এখনো বিজেপির নেতা-নেত্রীরা স্পষ্ট না জানালেও ভেতরে ভেতরে সব ঠিক হয়ে গেছে। কিন্তু রাজনৈতিকমহলের মতে যতক্ষণ না ঘোষণা হয় ততক্ষন কিছুই ঠিক হয় না রাজনীতিতে।তবে যায় হোক আগামী ৯ ই এপ্রিল প্রসঙ্গত মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিন ও ১১ ই এপ্রিলের মধ্যে সব প্রার্থীকে দলীয় প্রতীক জমা করতে হবে।তাই সবাই ওই সময়টার দিকেই তাকিয়ে আছে। যদি এই খবর সত্যি হয় তবে সত্যিই বিজেপি তৃণমূলকে মাস্টারস্ট্রোকে দিতে চলেছে বলে মত রাজনৈতিকমহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!