এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > অভিষেকের মুখে ‘অমানবিক মুখ্যমন্ত্রী’! বাবুল সুপ্রিয় সহ বিজেপির তীব্র আক্রমন সোশ্যাল মিডিয়ায়!

অভিষেকের মুখে ‘অমানবিক মুখ্যমন্ত্রী’! বাবুল সুপ্রিয় সহ বিজেপির তীব্র আক্রমন সোশ্যাল মিডিয়ায়!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – একুশের বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে, ততই রাজ্যের দুই বিরোধী শিবির তৃণমূল এবং বিজেপির মধ্যে রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব প্রবলভাবে দেখা দিচ্ছে। নতুন করে তৃণমূল এবং বিজেপির দ্বন্দ্ব লেগেছে একটি ফেসবুক লাইভ ঘিরে। আর এই নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাঞ্চল্য। মহালয়ার দিন শুভেচ্ছা জানানোর জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো তথা তৃণমূল যুব সংগঠনের নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় একটি ফেসবুক লাইভ করেন।

সেখানেই তিনি মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসা করতে গিয়ে বলেছেন বলে জানা গেছে, মুখ্যমন্ত্রীর অমানবিক এবং অক্লান্ত পরিশ্রমে বাংলায় তাঁর মস্তিষ্কপ্রসূত বিভিন্ন পরিকল্পনা ও উন্নয়নের হাত ধরে বিশ্বের দরবারে আজ বাংলা উঠে আসতে পেরেছে। আর এই ভিডিও বার্তা নিয়েই শুরু হয় গন্ডগোল। অভিষেকের এই ভিডিও বার্তার একটি অংশ টুইট করেন বিজেপির কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। এবং বাবুল এই ভিডিও ক্লিপ এর সঙ্গে লেখেন, কটাক্ষ করে, “মুখ ফসকে সত্যি কথাটা বেরিয়ে গিয়েছে – ‘অমানবিক মুখ্যমন্ত্রী।”

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এ প্রসঙ্গে বাবুল সুপ্রিয় আরো তীব্র কটাক্ষ করে টুইটারে লিখেছেন, যারা এই ভিডিওটি শুট করেছেন তাঁরাও অমানবিক মুখ্যমন্ত্রীর যাবতীয় দুষ্কর্মের সঙ্গে লিপ্ত এবং বুঝতে পারেনি এভাবে সত্য বেরিয়ে আসবে। এদিকে ওই ভিডিও বার্তায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, লড়াই করে বাংলা ঘুরে দাঁড়াবে। অশুভ শক্তির বিনাশ হবে। এক্ষেত্রে অশুভ শক্তি বলতে গেরুয়া শিবিরকেই বোঝানো হয়েছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর পুরো ভিডিওটির মধ্যে শুধুমাত্র অমানবিক শব্দটিকে করে বিজেপি রাজনৈতিক মঞ্চে নেমে পড়েছে।

যদিও এই ভিডিওর সত্যতা কিন্তু এখনো পর্যন্ত প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার পক্ষ থেকে যাচাই করা সম্ভব হয়নি। তবে এই ভিডিওর ঘটনা যদি সত্য হয়, তাহলে আগামী বেশ কিছুদিন বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে যে দ্বন্দ্ব রয়েছে, তা আরও কয়েকধাপ এগিয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।  আপাতত বাংলার জনগণ দিন গুনছে একুশের বিধানসভা নির্বাচনের। তবে তার আগে এরকম আরো বহু ঘটনা ঘটবে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!