এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হস্তক্ষেপে মিটে গেল পাঁচ বছরের পুরোনো গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হস্তক্ষেপে মিটে গেল পাঁচ বছরের পুরোনো গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব



তৃণমূল কংগ্রেসের কোনো সাংগঠনিক পদে না থেকেও তিনি যে ক্রমশ শাসকদলের শীর্ষনেতৃত্ত্বের অন্যতম হয়ে উঠছেন আবার প্রমান করে দিলেন তৃণমূল যুব কংগ্রেস সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শাসকদল সূত্রে জানা যাচ্ছে, ২০১১সালে তৃণমূল কংগ্রেস সরকার ক্ষমতায় আসার পর পাত্রসায়রের বর্তমান ব্লক সভাপতি স্নেহেশ মুখোপাধ্যায় ও কার্যকরী সভাপতি পার্থপ্রতিম মজুমদারের মধ্যে সুসম্পর্ক ছিল। কিন্তু ২০১৩ সালে পঞ্চায়েত ভোটের আগে প্রার্থী দাঁড় করানো নিয়ে মতভেদ চরমে পৌঁছায়, যা সামলাতে হিমশিম খেতে হয়েছে শাসক নেতৃত্ত্বকে এই পাঁচ বছর ধরে। জেলা ও রাজ্য নেতৃত্ব একাধিকবার সমাধানের চেষ্টা করেও দ্বন্দ্ব মেটেনি। অবশেষে বাঁকুড়ার দলীয় পর্যবেক্ষক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় জেলা সফরে এসে পাত্রসায়রে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব মিটিয়ে ১২ জনের কমিটি গড়ে একযোগে কাজ করার নির্দেশ দেন।
আর তারপরেই কাজ হয় ম্যাজিকের মত। বিজেপিকে রুখতে পাত্রসায়রে তৃণমূল কংগ্রেসের দুই গোষ্ঠীর নেতারা পাঁচ বছর পর সোমবার ফের এক মঞ্চে দাঁড়িয়ে লড়াইয়ের শপথ নিলেন। সম্মেলনে রাজ্যের পঞ্চায়েত, গ্রামোন্নয়ন ও জনস্বাস্থ্য কারিগরি দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা, বিষ্ণুপুরের সংসদ সদস্য সৌমিত্র খাঁ, তৃণমূল কংগ্রেসের বাঁকুড়া জেলা সভাপতি অরূপ খাঁ সহ বেশ কয়েকজন বিধায়ক উপস্থিত ছিলেন। পরে স্নেহেশবাবু বলেন, এলাকার উন্নয়ন নিয়ে দলীয় স্তরে কিছুটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। বর্তমানে তা মিটে গিয়েছে। এবার থেকে আমরা একযোগে দলের কাজ করব। পাশে দাঁড়িয়ে পার্থপ্রতিমবাবুও সম্মতিসূচক ঘাড় নাড়েন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!