এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আবারও মাধ্যমিকের বাংলা প্রশ্নপত্র ফাঁস, দিনভর ভাইরাল হয়ে ঘুরল প্রশ্নপত্র

আবারও মাধ্যমিকের বাংলা প্রশ্নপত্র ফাঁস, দিনভর ভাইরাল হয়ে ঘুরল প্রশ্নপত্র



নিরাপত্তায় বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ফের ফাঁস মাধ্যমিকের বাংলা প্রশ্নপত্র। আগে থেকেই ঘোষণা করা হয়েছিল মাধ্যমিক পরীক্ষার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ থাকবে। এমনকি শিক্ষকদেরও ঘড়ি, ফোন ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। কিন্তু তা সত্বেও প্রত্যেক বছরের মতোই এ বছরেও মাধ্যমিকের প্রথমদিনেই বাংলা প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ উঠেছে। শোনা যাচ্ছে, পরীক্ষা শুরু হবার এক ঘণ্টার মধ্যেই জনপ্রিয় হোয়াটসঅ্যাপে প্রশ্নপত্র চলে এসেছে। এবং তা ভাইরাল আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। প্রতিবছরেই মাধ্যমিকের প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ ওঠে এবং প্রত্যেক বছর মাধ্যমিক শিক্ষা পর্ষদ কঠোর নিয়ম নীতি মেনে চলার কথা বলেন। এবারেও কঠোর নিরাপত্তা বলয় কিছু কম ছিলনা। কিন্তু তা সত্বেও আবারও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল।

মাধ্যমিক পরীক্ষার আজ ছিল প্রথম ভাষা বাংলা পরীক্ষা। প্রথম দিনেই বাংলা পরীক্ষা নিয়ে উঠেছে সমালোচনার ঝড়। সূত্রের খবর, কড়া নিরাপত্তার ঘেরাটোপে পরীক্ষা হলেও বাংলা প্রশ্নপত্র নিয়ে বিভ্রাট দেখা দিয়েছে। জানা গেছে, পরীক্ষা শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যেই হোয়াটসঅ্যাপে ভাইরাল হয়ে যায় প্রথম ভাষা বাংলার প্রশ্নপত্র। তবে একথা অবশ্য জানা যায়নি, যে প্রশ্নপত্রটি ভাইরাল হয়েছে সেই একই প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিচ্ছে কিনা। সম্পূর্ণ ঘটনা জানা যাবে পরীক্ষা শেষের পর অর্থাৎ বেলা 3 টে বছরের প্রথম দিনের পরীক্ষা শেষ হচ্ছে। তারপরেই জানা যাবে আসল ঘটনা।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

2019 এ মধ্যশিক্ষা পর্ষদকে লাগাতার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে হয়রান হতে হয়েছিল। তারপরেই পর্ষদ রীতিমত কঠোর নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলে যাতে প্রশ্নপত্র ফাঁস না হয়। কিন্তু এদিন রীতিমতো বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে মধ্যশিক্ষা পর্ষদকে আবারও বিপাকে ফেলল কেউ বা কারা। আবারও প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ। প্রশ্ন ফাঁস রুখতে এবার একাধিক কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছিলো মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। এমনকি বিভিন্ন জেলার 42 টি ব্লকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল ইন্টারনেট পরিষেবা। কিন্তু তা সত্বেও কিভাবে প্রথম ভাষা বাংলা পরীক্ষার কিছুক্ষণের মধ্যেই এই অভিযোগ উঠল, তা নিয়ে যথেষ্ট চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। অবশ্য এখনো পর্যন্ত মধ্যশিক্ষা পর্ষদের তরফ থেকে এই অভিযোগ নিয়ে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

এত কঠিন নিরাপত্তা বলয় সত্ত্বেও শেষমেষ প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ ঘিরে প্রশ্নের মুখে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। বারংবার একই ঘটনা ঘটলেও তা থেকে এখনো পর্যন্ত শিক্ষা নেয়নি পর্ষদ বলে দাবি করছে রাজ্যের বিরোধী দলগুলি। সূত্রের খবর, গত বছরও সাতটি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে গিয়েছিল তাই এবার বাড়তি সর্তকতা অবলম্বন করা হয়েছিল পর্ষদ এর পক্ষ থেকে। অন্যদিকে, শিক্ষা মহলের দাবি এই প্রশ্ন ফাঁসের পেছনে পর্ষদের কারোর জড়িত থাকার সন্দেহও একেবারে উড়িয়ে দেওয়া যায়না। আপাতত আজকের প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় পর্ষদ কি ব্যবস্থা নেয় তা দেখার অপেক্ষায় রাজ্যবাসী।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!