এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আবারও চমক তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জ্জীর, কমিশনের ভোট ঘোষণার আগেই নেত্রীর ঘোষণা

আবারও চমক তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জ্জীর, কমিশনের ভোট ঘোষণার আগেই নেত্রীর ঘোষণা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটের সময় মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সাংবাদিক বৈঠক করে জানিয়ে দিলেন, রাজ্যের ভোটের নির্ঘণ্ট। আর তার আগেই অর্থাৎ দুপুরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আবারও একটি জনমোহিনী ঘোষণা করলেন। রাজ্যের ভোট ঘোষণার আগে সরকারি বিভিন্ন ক্ষেত্রে কর্মচারীদের মাইনে বাড়ানো হয়েছে ইতিমধ্যেই। আর এবার 100 দিনের কাজে যুক্ত শ্রমিকদের মজুরি বাড়িয়ে দিল রাজ্য সরকার। শুক্রবার দুপুরে টুইট করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই এ কথা জানিয়েছেন।

100 দিনের কাজে মূলত তিন ধরনের শ্রমিক কাজ করে। তাঁদের প্রত্যেকেরই দৈনিক মজুরি বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। বরাবরই 100 দিনের কাজ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে শাসক শিবিরের বিরুদ্ধে। কিন্তু সমস্ত বিতর্ককে দূরে সরিয়ে রেখে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 56500 জন শ্রমিকের মজুরি বৃদ্ধি করলেন আজ। জানা গিয়েছে এই শ্রমিকদের মধ্যে 40 হাজার 500 জন অদক্ষ শ্রমিক, 8000 জন মাঝারি দক্ষ শ্রমিক এবং 8 হাজার জন দক্ষ শ্রমিক রয়েছে। অদক্ষ শ্রমিকের দৈনিক মজুরি 144 টাকা থেকে বেড়ে হলো 202 টাকা।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

মাঝারি দক্ষ শ্রমিকদের মজুরি 172 টাকা থেকে বেড়ে হলো 303 টাকা এবং দক্ষ শ্রমিকদের মজুরি 460 টাকা হল। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী এদিন জানিয়েছেন, 100 দিনের শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির ব্যাপারটি তাঁর বাজেটে রাখাই ছিল। অন্যদিকে রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, নির্বাচনী নির্ঘণ্ট ঘোষণার আগে তড়িঘড়ি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে দৈনিক শ্রমিকদের মজুরি বাড়িয়ে দিলেন, তা একটি সুদক্ষ রাজনৈতিক কৌশল বলে মনে করা হচ্ছে। অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণাকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই বিরোধীদের প্রবল কটাক্ষ শোনা যাচ্ছে।

বরাবরই বিরোধীরা 100 দিনের কাজ নিয়ে শাসকদলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ করেছে। আর এবার বিরোধীরা বলতে শুরু করল আরো বেশি টাকা লুটের বন্দোবস্ত করে দেওয়া হল। এদিকে রাজ্যের ভোটের নির্ঘণ্টও আজকের ঘোষণা হলো। স্বাভাবিকভাবেই রাজ্য দখলের লড়াই যে আরো জোরদার হবে, সে কথা বলাই বাহুল্য। আপাতত মসনদ দখলের যুদ্ধে তৃণমূল নেত্রী এই জনমোহিনী সিদ্ধান্তের ওপর ভর করে কি এগিয়ে যেতে পারবেন নাকি টেক্কা মারবে অন্য কোনো শক্তি!

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!