এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > চার বছর মাধ্যমিক পরীক্ষা দিতে হবে না, বিস্ফোরক উক্তি শিক্ষামন্ত্রীর!

চার বছর মাধ্যমিক পরীক্ষা দিতে হবে না, বিস্ফোরক উক্তি শিক্ষামন্ত্রীর!



অতীত থেকে শিক্ষা নিয়ে এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষায় যাতে কোনো রকম বিশৃঙ্খলা না ঘটে, তার জন্য আগেভাগেই সর্তকতামূলক পদক্ষেপ নিয়েছিল রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর। কিন্তু মাধ্যমিক পরীক্ষায় শিক্ষা দপ্তরের ভিত যে অত্যন্ত নড়বড়ে, তা ফের প্রমাণিত হয়ে গেল। ইতিমধ্যেই যত পরীক্ষা হয়েছে মাধ্যমিকের, সব পরীক্ষা শুরু হওয়ার পরপরই তার প্রশ্নপত্র ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যা নিয়ে নানা মহলে উঠতে শুরু করেছিল প্রশ্ন।

অনেকেই বলতে শুরু করেছিলেন, যেখানে মাধ্যমিক পরীক্ষা চালুর পর থেকেই নেট বন্ধ করার কথা ঘোষণা করেছে রাজ্য, সেখানে কেন বজ্র আঁটুনি নিরাপত্তা থাকলেও, এতটা গলতি থেকে যাচ্ছে! সূত্রের খবর, সোমবার মাধ্যমিক পরীক্ষা চলার সময় শিলিগুড়িতে বেশ কয়েকটি স্কুলে গিয়ে অভিভাবক এবং ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। আর সেখানেই শিক্ষামন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বেশ কিছু অস্বস্তিকর প্রশ্ন করে ফেলেন অভিভাবক অভিভাবিকারা!

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তারা বলেন, “প্রশ্ন বাইরে বেরিয়ে যাচ্ছে শুনলে ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে উদ্বেগ হয়। এটা বন্ধ করতে কি কোনো ব্যবস্থাই শিক্ষা দপ্তর নিতে পারছে না!” আর এরপরই এই ব্যাপারে বলতে গিয়ে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “যারা ছবি তুলছে তারা কোনো জেলা দেখে করে না। তাই নির্দিষ্ট করে কোনো জেলাকে চিহ্নিত করা যাবে না।” অন্যদিকে যে সমস্ত পরীক্ষার্থীরা এই কাজ করেছে, তাদের আর চার বছর মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়ার দরকার নেই বলেও জানিয়ে দেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

আর এখানেই অনেকে বলছেন, প্রশ্নপত্র ফাঁস হচ্ছে। তা নিয়ে অভিভাবকরা প্রশ্ন করছেন। আর তখন শিক্ষামন্ত্রী বলছেন, যে যারা এই সমস্ত কিছু ফাস করছেন, তাদের আর চার বছর পরীক্ষা দিতে হবে না। তাহলে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষাকে বিনষ্ট করে কি এই সমস্যার সমাধান সম্ভব! কেন এই ব্যাপারে কড়া পদক্ষেপ নিচ্ছে না রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর! তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে বিভিন্ন মহলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!