এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বড়সড় ধাক্কা বিজেপির, 2021 এ বাংলা দখল নিয়ে বাড়ল কি চাপ? সামনে এল নয়া সমীক্ষা!

বড়সড় ধাক্কা বিজেপির, 2021 এ বাংলা দখল নিয়ে বাড়ল কি চাপ? সামনে এল নয়া সমীক্ষা!


2014 সালে কেন্দ্রের ক্ষমতায় আসার পরই বিজেপি সরকারের লক্ষ্য ছিল, বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে কার্যত কোণঠাসা করে দেওয়া। সেই মতো বিভিন্ন রাজ্যে একের পর এক নির্বাচনে ক্ষমতা দখল করতে দেখা গেছে ভারতীয় জনতা পার্টিকে। তবে এখনও পর্যন্ত বেশকিছু রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতা দখল করতে পারেনি। যার মধ্যে অন্যতম পশ্চিমবঙ্গ। তবে 2021 সালে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ক্ষমতাচ্যুত করে বাংলার ক্ষমতা দখল করা এখন বিজেপি নেতাদের কাছে প্রধান টার্গেট হয়ে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু সত্যিই কি বিজেপির পক্ষে সেই টার্গেট পূরণ করা সম্ভব?

একটি সমীক্ষা এখন এই প্রশ্ন তুলে দিতে শুরু করেছে। কেননা বর্তমানে বিজেপি যে সমস্ত রাজ্যে রয়েছে, সেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের পারফরম্যান্স একটি সমীক্ষায় খুব একটা ভালো নয়। যার ফলে বাংলার ক্ষমতা দখল করতে উদ্যোগী হওয়া ভারতীয় জনতা পার্টি অন্য রাজ্যে থাকা শাসন ক্ষমতার কথা তুলে ধরে কিভাবে বাংলার মানুষের মন জয় করবে এবং কিভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ক্ষমতাচ্যুত করবে, তা নিয়ে তৈরি হচ্ছে বিরাট প্রশ্ন।

সূত্রের খবর, সি ভোটারের করা একটি সমীক্ষায় বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের পারফরম্যান্সের কথা তুলে ধরা হয়েছে। যার মধ্যে একদম শীর্ষে রয়েছেন উড়িষ্যার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক, তারপরেই রয়েছেন কংগ্রেস শাসিত ছত্রিশগড়ের ভূপেশ বাঘেল, তৃতীয় স্থানে বাম শাসিত কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন, চতুর্থতে অন্ধপ্রদেশের জগনমোহন রেড্ডি, পঞ্চমে মহারাষ্ট্রের উদ্ধব ঠাকরে এবং ছয় নম্বরে রয়েছে অরবিন্দ কেজরিওয়াল। অন্যদিকে বিজেপি যে সমস্ত রাজ্যের ক্ষমতায় রয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টর। পারফরমেন্সের দিক থেকে তিনি রয়েছেন তেইশ নম্বর স্থানে।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কাজে সন্তুষ্ট মাত্র 25.28 শতাংশ মানুষ। আর অসন্তুষ্ট 46.82 শতাংশ মানুষ। আর হরিয়ানার পরেই রয়েছে বিজেপি শাসিত আরেকটি রাজ্য উত্তরাখণ্ড। আর বিরোধী দলের দখলে থাকা একের পর এক রাজ্যগুলিতে মুখ্যমন্ত্রীর ভালো কাজ করে শীর্ষে থাকলেও কেন বিজেপি শাসিত রাজ্য গুলো এত তলার দিকে রয়েছে তা নিয়ে এখন রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে গুঞ্জন। অনেকে বলছেন, যে বিজেপি অন্য রাজ্যে ক্ষমতায় থেকে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে বলে পশ্চিমবঙ্গে বড় বড় দাবি করে এবং পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় আসার স্বপ্ন দেখে, সেই বিজেপির দখলে থাকা রাজ্যগুলিতে এই অবস্থা দেখে অনেকেই তাদের মুখোশ ধরে ফেলেছে। তাই তাদের পক্ষে পশ্চিমবঙ্গ দখল করা দিবাস্বপ্ন ছাড়া আর কিছুই নয়। তবে বিজেপির সমালোচকরা এই কথা বললেও, পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে এই সমীক্ষা কি আদৌ স্বস্তিকর?

জানা গেছে, বাস্তব হলেও সত্য যে, সি ভোটারের করা সমীক্ষায় দেশের প্রথম 10 টি রাজ্যের মধ্যে এবং মুখ্যমন্ত্রীদের মধ্যে স্থান হয়নি বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কাজের নিরিখে তিনি দখল করেছেন 17 নম্বর স্থান। সেদিক থেকে পশ্চিমবঙ্গের জনগণের মতামতও উঠে এসেছে। জানা গেছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাজে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন 38.52 শতাংশ মানুষ। অন্য দিকে কিছুটা হলেও সন্তুষ্ট 36.79% মানুষ এবং একেবারেই সন্তুষ্ট নন 23.29 শতাংশ মানুষ। অর্থাৎ এই সমীক্ষা যে তৃণমূলের পক্ষে খুব একটা স্বস্তির খবর আনছে না, তা কার্যত পরিষ্কার হয়ে গেছে।

তবে বিজেপির পক্ষ থেকে বাংলা দখলের জন্য বর্তমানে যে তৎপরতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে, তা এই সমীক্ষার পরে বিজেপিকে অনেকটাই চাপে ফেলে দেবে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। কেননা বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলোতে যখন বিজেপি এই সমীক্ষায় একদম তলার দিকে রয়েছে, তখন তৃণমূলের পক্ষ থেকে প্রশ্ন করে বিজেপিকে কটাক্ষ করে চাপে ফেলে দেওয়া হতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে। এখন গোটা পরিস্থিতি কোনদিকে গড়ায়, এই সমীক্ষার পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের তরফে কি বক্তব্য প্রদান করা হয়, তার দিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!