এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ২০১৯-এ ফের ক্ষমতায় আসার পাশাপাশি আগামী ৫০ বছরের স্বপ্ন দেখছেন বিজেপি শীর্ষ-নেতৃত্ত্ব

২০১৯-এ ফের ক্ষমতায় আসার পাশাপাশি আগামী ৫০ বছরের স্বপ্ন দেখছেন বিজেপি শীর্ষ-নেতৃত্ত্ব



আগামী লোকসভায় দেশের কুর্সিতে কে বসবেন তার জন্য এখন থেকেই নিজেদের রাজনৈতিক প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে প্রায় সব রাজনৈতিক দলই। বিজেপিকে হঠাতে দেশজুড়ে তৈরি হয়েছে বিরোধী মহাজোট। কিন্তু সেই মহাজোটে সঠিক নেতৃত্বের অভাব এখনও বিদ্যমান! কে হবেন তাঁদের নেতা তা নিয়ে ধন্দে রয়েছেন বিজেপি বিরোধী জোটে সামিল হওয়া প্রায় সব রাজনৈতিক দলই।

আর এই নেতৃত্বহীনতার আশু সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দলের দু দিনের কর্মসমিতির বৈঠক শেষে সেই বিরোধী জোটকেই তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁর বক্তব্যে বলেন, “মহাজোটের নেতাকে তো খুঁজেই পাওয়া যাচ্ছে না। এই ঝোটে যার আছেন তারা একে অন্যকে দেখতে পারেন না। আর আজ তাঁরাই মোদীকে হটাতে একজোট হয়েছেন। আর এখানেই আমাদের বড় সাফল্য।”

কিন্তু মহাজোটকে আক্রমন করলে কেন সেখানে বাদ থাকবেন দেশের বিরোধী দল কংগ্রেস? তাই এদিনের সভায় কংগ্রেসের রাহুল গান্ধীকেও কটাক্ষ করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, “48 বছরের একটি পরিবারের কাজকর্মের সাথে 48 মাসের একটি সরকারের কাজের বিচার করুন। কংগ্রেস সবসময় মিথ্যাচারের রাজনীতি করে। আমরা নীতির সাথে লড়লেও মিথ্যার সাথে লড়ব কিভাবে?”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কিন্তু কংগ্রেস তথা বিরোধীদের এত কটাক্ষ করলেও 2019 এ আদৌ কেন্দ্রে এই গেরুয়া ঝড় অব্যাহত থাকবে? সূত্রের এদিনের জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকেও সেই প্রসঙ্গ তুলে প্রত্যয়ী অমিত শাহ বলেন, “2019 এ তো বটেই, পরবর্তী 50 বছরেও আমাদের কেউ হারাতে পারবে না।” এদিকে এই জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকে আদৌ কি বার্তা দিলেন মোদী শাহ জুটি? সেই কথা তুলে ধরতে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ এবং প্রকাশ জাভরেকর। লোকসভার আগে দলীয় সংগঠনকে মজবুত করতে বুথ কমিটি তৈরি করার নির্দেশ এদিন রাজ্য নেতাদের দিয়েছেন বিজেপির শীর্ষনেতৃত্ব। এদিনের বৈঠকে বাংলার কথাও যে প্রাসঙ্গিক ভাবে উঠে এসছে সে কথাও সংবাদমাধ্যমে জানান প্রকাশ জাভরেকর। পাশাপাশি এনআরসি নিয়ে বিরোধীরা এত হইহট্টগোল করলেও তা যে দেশের অনুপ্রবেশকারীদের এদিন সেই ব্যাপারেও নিজেদের মতামত স্পষ্ট ভাবেই জানান এই দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। জিএসটি নিয়েও আগের মত অত হম্বিতম্বি নেই বলে বিরোধীদের ঠেস দেন প্রকাশ জাভরেকর ও রবিশঙ্কর প্রসাদ।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষদের মতে, সারা দেশে পদ্ম চাষ আরও কিভাবে বাড়ানো যায় এবং লোকসভা ভোটের আগে এই বিরোধী মহাজোটকে কিভাবে ঠেকানো যায় সেই চিন্তায় এখন বিরোধী অলআউট অ্যাটাকে দলীয় নেতাদের পথে নামতে নিঝেদের বক্তব্যের মাধ্যমে সেই নির্দেশই দিলেন কেন্দ্রের মোদী-শাহ জুটি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!