এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > ছত্রধর মাহাতো জেল থেকে মুক্তি পেতেই খুলতে চলেছে দুই হাই প্রোফাইল মামলা! শুরু গুঞ্জন

ছত্রধর মাহাতো জেল থেকে মুক্তি পেতেই খুলতে চলেছে দুই হাই প্রোফাইল মামলা! শুরু গুঞ্জন



বেশ কিছুদিন আগে দীর্ঘ কারাবাসের পর মুক্তি পেয়েছেন তিনি। কিন্তু মুক্তি পেতে না পেতেই আবার অস্বস্তি মুখে পড়তে হবে ছত্রধর মাহাতোকে? সূত্রের খবর, তাঁর সঙ্গে যুক্ত রয়েছে জঙ্গলমহলের এমন দুটো হাইপ্রোফাইল মামলার তদন্ত শুরু করার চিন্তাভাবনা করেছে এনআইএ। সূত্রের খবর, গত 2008 সালের জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা আইনের 6 নম্বর ধারার 5 উপধারা এবং এক নম্বর ধারায় এই নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

গত 30 মার্চ কেন্দ্রের পক্ষ থেকে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আর কেন্দ্র এরূপ নির্দেশ দেওয়ায় রাজ্য সরকার যদি এই ব্যাপারে কোন আপত্তিও জানায়, তাহলে তা ঢোপে টিকবে না বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। শুধু তাই নয়, রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনের অস্বস্তি অনেকটাই বাড়বে এর ফলে। কেননা ইতিমধ্যেই এই আইনে পরিষ্কারভাবে বলা হয়েছে যে, যদি কোনো নথির প্রয়োজন হয়, তাহলে এনআইএর হাতে তা তুলে দিতে হবে রাজ্য প্রশাসনকে।

কিন্তু কোন কোন মামলায় এই নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার? জানা গেছে, গত 2009 সালে দুটি মামলায় এই তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে‌। যার মধ্যে রয়েছে, গত 2009 সালে জেলবন্দি ছত্রধর মাহাতোর মুক্তির দাবিতে 27 অক্টোবর বাঁশপাহাড়ি স্টেশনে ভুবনেশ্বর রাজধানী আটকে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে জনসাধারণ কমিটি এবং মাওবাদীদের বিরুদ্ধে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর এই ঘটনায় প্রত্যক্ষভাবে ছত্রধর মাহাতোর নাম না জড়ালেও, পরোক্ষভাবে তার ইঙ্গিত রয়েছে বলেই মনে করছেন একাংশ। ফলে এই মামলায় কেন্দ্র এবার তদন্তের নির্দেশ দেওয়াতে কিছুটা হলেও স্বস্তি বাড়বে সেই ছত্রধর মাহাতোর। একইভাবে 2009 সালের 14 আগস্ট লালগড় থানার ধরমপুরে সিপিএম নেতার খুনের মামলার ঘটনার তদন্তের ভারও এনআইএকে দিয়েছে কেন্দ্র।

কিন্তু কিছুদিন আগেই যে ছত্রধর মাহাতো জেল থেকে ছাড়া পেলেন, সেই ছত্রধর মাহাতোকে বিপাকে ফেলতেই কি তাহলে কেন্দ্রের এই পদক্ষেপ? কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে এই ব্যাপারে অন্য যুক্তি খাড়া করা হলেও, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা অন্য কথা বলছেন। তাদের দাবি, আসলে জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর ছত্রধর মাহাতো বিশেষ এক রাজনৈতিক দলের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করছেন।

ফলে জঙ্গলমহলে ছত্রধরবাবু যদি সেই দলের হয়ে প্রচার শুরু করেন, তাহলে কিন্তু অনেক সমীকরণই বদলে যেতে পারে! তাই এই পরিস্থিতিতে পুরনো মামলা টেনে এনে আইএনএকে দিয়ে তদন্তের নির্দেশ প্রকারন্তরে ছত্রধর মাহাতোকে চাপে রাখার কৌশলও হতে পারে বলে মত বিশ্লেষকদের। এখন গোটা পরিস্থিতি কোনদিকে গড়ায়, তার দিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!