এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > 100 দিনে 1 কোটি মানুষের কাছাকাছি পৌঁছে যাওয়ার উদ্যোগ তৃণমূলের, জেনে নিন!

100 দিনে 1 কোটি মানুষের কাছাকাছি পৌঁছে যাওয়ার উদ্যোগ তৃণমূলের, জেনে নিন!



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – হাতে আর কয়েকটা মাস বাকি। তারপরই বাংলার বিধানসভা নির্বাচন। যে নির্বাচনে ঠিক হয়ে যাবে, রাজ্যের ক্ষমতা কারা দখল করবে! বর্তমানে তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের ওপর ক্রমাগত চাপ বাড়াতে শুরু করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। বিজেপি নিজেদের মত করে মানুষের সাথে জনসংযোগ করতে শুরু করেছে। আর এখানেই চাপে পড়েছে শাসক দল। একদিকে প্রতিষ্ঠানবিরোধী হাওয়া, আর অন্যদিকে বিজেপির পক্ষ থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ কার্যত ব্যাকফুটে ফেলে দিয়েছে শাসকদলকে।

সাথে তৃণমূল কংগ্রেসের বিড়ম্বনা হয়ে দাঁড়িয়েছে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। তাই এই পরিস্থিতিতে উন্নয়নের ওপর ভিত্তি করে আগামী বিধানসভা নির্বাচনের আগে মানুষের কাছাকাছি পৌঁছে যেতে উদ্যোগ গ্রহণ করল তৃণমূল কংগ্রেস। সূত্রের খবর, গত 10 বছরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন সরকার রাজ্যে কি কি কাজ করেছে, তার খতিয়ান তুলে ধরে একটি রিপোর্ট কার্ড তৈরি করা হবে। আর সেই রিপোর্ট কার্ড নিয়ে 100 দিনে 1 কোটি মানুষের কাছে পৌঁছে যাওয়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

বস্তুত, প্রশান্ত কিশোরের মস্তিষ্ক পরিকল্পনা মাফিক “দিদিকে বলো” কর্মসূচি থেকে শুরু করে “বাংলার গর্ব মমতা” কর্মসূচিতে তৃণমূলের যারা দায়িত্বে ছিলেন, তাদেরকে এই কর্মসূচির দায়িত্ব দেওয়া হবে। যেখানে মানুষের কাছে পৌঁছে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের 10 বছরের আমলের খতিয়ান রিপোর্ট কার্ড হিসেবে পেশ করবেন সেই সমস্ত নেতা কর্মীরা।

তৃণমূলের দাবি, গত 10 বছরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের আমলে খাদ্যসাথী থেকে স্বাস্থ্যসাথী বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্প মানুষের জন্য গ্রহণ করা হয়েছে। তাই সেই সমস্ত প্রকল্প মানুষের কাছে আরও নতুন ভাবে জানাতে 10 বছরে রিপোর্ট পেশ করা হবে। যেখানে কলকাতায় বিভিন্ন দপ্তরের মন্ত্রীরা সাংবাদিক সম্মেলন করে সেই রিপোর্ট কার্ডের বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেবেন এবং তারপর বিভিন্ন জেলা নেতৃত্বরা নিজেদের জেলায় কেন্দ্রীয় ভাবে তার প্রচার শুরু করবেন।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

একাংশ বলছেন, বিজেপি যখন রাজ্যে তাদের প্রভাব বাড়াতে শুরু করেছে, তখন তৃণমূলের প্রধান অস্ত্র হচ্ছে উন্নয়ন। তাই সেই উন্নয়নকে হাতিয়ার করেই বিগত 10 বছর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার কি কি কাজ করেছে, তা রিপোর্ট আকারে মানুষের কাছে পেশ করতে চাইছে শাসকদলের নেতাকর্মীরা। আর তার কারণেই তৃণমূলের এই উদ্যোগ বলে দাবি করছেন বিশেষজ্ঞরা।

জানা গেছে, শুক্রবার থেকেই তৃণমূলের নতুন কর্মসূচি শুরু হচ্ছে বঙ্গধ্বনি যাত্রা। আগামী দশ দিন প্রতিটি বিধানসভা কেন্দ্রের 3 থেকে 5 টি দল এই যাত্রা শুরু করবে। যেখানে 4 হাজার নেতা 950 টি দলে বিভক্ত হয়ে 27 হাজার 500 টি এলাকায় পৌঁছে যাবেন। রাজ্যের প্রায় আড়াই লক্ষ কিলোমিটার জুড়ে এক কোটি মানুষের সঙ্গে জষসম্পর্ক স্থাপন করবেন তৃণমূলের সমস্ত নেতা কর্মীরা। আর এই বঙ্গধ্বনি যাত্রার মধ্য দিয়েই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার কি কি কাজ করেছে, তার রিপোর্ট কার্ড মানুষের কাছে পেশ করা হবে।

একাংশ বলছেন, অতীতে প্রশান্ত কিশোরের কথামত যেমন “দিদিকে বলো” প্রকল্পে থেকে শুরু করে “বাংলার গর্ব মমতা” প্রকল্পে মানুষের সঙ্গে জনসংযোগ করা হয়েছে, ঠিক তেমনই এই বঙ্গধ্বনী কর্মসূচী এখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের উন্নয়নকে হাতিয়ার করে একদিকে জনসংযোগ এবং অন্যদিকে নিজেদের প্রচার করবে তৃণমূল কংগ্রেস। শাসকদল আত্মপ্রত্যয়ী, এই প্রচারের মধ্যে দিয়ে মানুষ তৃণমূলের প্রতি ভরসা রাখতে শুরু করবে। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূলের এই অভিনব জনসংযোগ কতটা কাজে দেয়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!