এখন পড়ছেন
হোম > আন্তর্জাতিক > কাশ্মীরে ভারতমাতার বীর সন্তানদের রক্ত – মেনে নিচ্ছে না গোটা বিশ্ব, জড়িতদের শাস্তিদানে ভারতের পাশেই সবাই

কাশ্মীরে ভারতমাতার বীর সন্তানদের রক্ত – মেনে নিচ্ছে না গোটা বিশ্ব, জড়িতদের শাস্তিদানে ভারতের পাশেই সবাই

১৪ ই ফেব্রুয়ারি ভালোবাসার দিনে যখন লাল গোলাপ দিচ্ছে একে অপরকে, ঠিক তখনই এই ভারতভূমির বীর সেনানীদের হত্যা করে সেই লাল গোলাপের গায়ে রক্ত লাগালো পাকিস্তানের জঙ্গিরা। জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় নৃশংস জঙ্গী হামলার ঘটনায় বর্তমানে শোকার্ত গোটা দেশ। ইতিমধ্যেই ভারতের প্রায় প্রত্যেক প্রান্তেই দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি করে নিহত শাহীদদের শান্তি কামনায় মোমবাতি মিছিল সহ একাধিক কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে। তবে শুধু ভারত নয়, এবার ভারতে জঙ্গি হামলার ঘটনায় ও বীর সেনানীদের মৃত্যুর ঘটনায় ভারতের পাশে দাঁড়ালো বিভিন্ন দেশ।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে রাশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স, সৌদি আরব, শ্রীলঙ্কা থেকে বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান, ইজরায়েল সহ বিভিন্ন দেশ এই ঘটনায় পাক জঙ্গী সংগঠন জয়েশ-ই-মহম্মদের কড়া সমালোচনা করে ভারতের পাশে থাকার বার্তা দিল। সূত্রের খবর, এই ঘটনায় নানা দেশের প্রধানমন্ত্রীরা ভারতের পাশে থেকে তাঁদের শোকবার্তা জ্ঞাপন করেছে। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেন, “সন্ত্রাস মোকাবিলায় এবার থেকে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ভারতের সঙ্গে রাশিয়া যৌথভাবে কাজ করবে। জম্মু-কাশ্মীরের জঙ্গি হামলার ঘটনায় ও ভারতের সেনা জওয়ানদের শহীদ হওয়ার ঘটনায় শোক প্রকাশ করার কোনো ভাষা নেই। আমরা এই হামলার তীব্র নিন্দা করছি। এই ঘটনায় জড়িতদের কড়া শাস্তি হওয়া উচিত।”

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিকে ভারতের সেনাবাহিনীদের ওপর পাক মদতপুষ্ট জঙ্গিদের এই আক্রমণে পাকিস্তানের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে জঙ্গিদের মদত দেওয়া বন্ধ করার জন্য বার্তা দেয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও। জঙ্গি দমনে কোনরূপ নমনীয় মনোভাব নেওয়া হবে না এবং এই ঘটনায় তাঁরা শহীদ জওয়ান পরিবারের পাশে আছেন বলে জানিয়ে দেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। একই কথা বলে এই জঙ্গী হামলাকে “কাপুরুষোচিত” বলে আখ্যা দেয় সৌদি আরব। অন্যদিকে পাক জঙ্গিদের ভারতের সেনাবাহিনীর প্রতি এই হামলায় তাঁরা ভারতের পাশে সব সময় আছে বলে জানিয়ে দেয় সৌদি আরব সংযুক্ত আরব আমিরশাহির বিদেশ বিদেশমন্ত্রক।

একই ভাবে ভারত সরকারের পাশে তারা সব সময় আছেন বলে স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন ডমিনিকান রিপাবলিকের রাষ্ট্রদূত হান্স ডানেনবার্গ কাস্টেল্লানোস, ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু, শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিঙ্ঘে, নেপাল, ভুটান ও মালদ্বীপের মত দেশের কর্তাব্যক্তিরা। সব মিলিয়ে পাক মদতপুষ্ট জঙ্গী সংগঠনের ভারতের ওপর এই হামলায় ভারতের পাশেই দাঁড়ালেন বিভিন্ন রাষ্ট্রনায়কেরা। শান্তির দেশ হিসাবেই বিশ্বে পরিচিত ভারতের উপর এই নৃশংস হত্যালীলা বিশ্বের কোনো শান্তিকামী দেশই মেনে নিতে পারছে না – যা আগামীদিনে ভারতকে কড়া পদক্ষেপ নিতে সাহায্য করবে।

আপনার মতামত জানান -
Top