এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > কর্নাটকে ফল ত্রিশঙ্কু হলে বিজেপি না কংগ্রেস কার হাত ধরবে জেডিএস? মিলল ইঙ্গিত

কর্নাটকে ফল ত্রিশঙ্কু হলে বিজেপি না কংগ্রেস কার হাত ধরবে জেডিএস? মিলল ইঙ্গিত

গতকাল দক্ষিণ ভারতের অন্যতম গুরুত্ত্বপূর্ন রাজ্য কর্নাটকে বিধানসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ হতেই বিভিন্ন সংস্থার করা বুথ ফেরত সমীক্ষায় ইঙ্গিত মিলছে, কর্নাটকে এবারের ফল ত্রিশঙ্কু হতে চলেছে। ২২৫ আসন বিশিষ্ট বিধানসভার ২২২ টি আসনে গতকাল ভোটগ্রহণ হয়, ক্ষমতায় আস্তে গেলে ১১৩ টি আসনে জিততে হবে, এই অবস্থায় দেখা যাচ্ছে, কোনো দলই সেই ‘ম্যাজিক-ফিগার’ ছুঁতে পারছে না। দুই যুযুধান শিবির বিজেপি ও কংগ্রেসের লড়াই হাড্ডাহাড্ডি হলেও, সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে বেশ কিছুটা পিছনেই শেষ করছে তারা। যদি সত্যিই তাই হয়, তাহলে এবারে কর্নাটকে গুরুত্ত্বপূর্ন ভূমিকা নিতে চলেছে অপর রাজনৈতিক দল জেডিএস। সমীক্ষায় ইঙ্গিত বিজেপি ও কংগ্রেসের বেশ কিছুটা পিছনে তাদের দৌড় শেষ হলেও, সরকার গঠনে তাদের ভূমিকাই শেষ পর্যন্ত নির্ণায়ক হতে চলেছে। এমত পরিস্থিতিতে রাজনৈতিক মহলে এখন লাখ টাকার প্রশ্ন – কি করবে জেডিএস? বিজেপি না কংগ্রেস কার হাত ধরবে তারা?

প্রসঙ্গত, নির্বাচনী প্রচারের সময় কংগ্রেস – জেডিএসকে বিজেপির ‘বি-টীম’ বলে কটাক্ষ করেছিল। অন্যদিকে নরেন্দ্র মোদী নির্বাচনী প্রচারে এসে জেডিএস সুপ্রিমো তথা প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবেগৌড়ার প্রশংসা করে জল্পনা বাড়িয়েছিলেন। এই পরিস্থিতিতে মুখ খুললেন জেডিএসের মুখপাত্র দানিশ আলি। তিনি বলেন, কংগ্রেস যদি ১০০-র কম আসন পায় তাহলে তাদেরকেই আমাদের কাছে সমর্থন চাইতে আসতে হবে। এটা তাদেরই দায়িত্ব। আমরা আগ বাড়িয়ে কাউকে সমর্থন করব না। কংগ্রেসকেই ঠিক করতে হবে তারা ২০১৯ সালের নির্বাচন কীভাবে লড়বে। নিজেকে ধর্মনিরপেক্ষ প্রমাণ করতে বার বার আত্মত্যাগ করতে পারবে না জেডিএস। এই পরিস্থিতিতে চরমে উঠল রাজনৈতিক জল্পনা, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন বিজেপি নয় কংগ্রেসের হাত ধরতেই বেশি আগ্রহী জেডিএস, কিন্তু তার সঙ্গেই কংগ্রেসের ভূমিকায় যে তারা সন্তুষ্ট নয়, সেই বার্তাও সুকৌশলে দিয়ে রাখা হল। তবে আগামী মঙ্গলবার ইভিএম খুললে তবেই বোঝা যাবে কি হতে চলেছে কর্ণাটকের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ। তার আগে, বিভিন্ন সমীকরণ নিয়ে জল্পনা অব্যাহত।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!