এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > বিদ্রোহী কাউন্সিলরদের সঙ্গে জেলা সভাপতির বৈঠক – তাও মিলল না সমাধানসূত্র, দুর্গাপুর নিয়ে চিন্তা বাড়ছে শাসকদলে

বিদ্রোহী কাউন্সিলরদের সঙ্গে জেলা সভাপতির বৈঠক – তাও মিলল না সমাধানসূত্র, দুর্গাপুর নিয়ে চিন্তা বাড়ছে শাসকদলে

এখনো উত্তাল দুর্গাপুর পুরসভা! বৈঠক করেও ক্ষোভ কমানো গেল না বিদ্রোহী কাউন্সিলরদের। সমাধানসূত্র বার করতে এদিন পুরসভার বিদ্রোহী কাউন্সিলরদের সঙ্গে বৈঠকে বসলেন তৃণমূল জেলা সভাপতি ভি শিবদাসন দাসু। সুরাহা মিলল না কিছুতেই। নিজেদের সিদ্ধান্তে এখনো অটল বিদ্রোহী কাউন্সিলররা। তাঁদের এই ভূমিকাকে কিছুতেই ভালোভাবে মেনে নিচ্ছে না দলীয় নেতৃত্ব, এমনটাই জানা গিয়েছে দলীয় সূত্রে। অন্যদিকে, এদিন বৈঠক চলাকালীনই আইএনটিটিইউসির কিছু কর্মী তাঁদের যাবতীয় ক্ষোভ উগড়ে দেন তৃণমূলের জেলা নেতৃত্বর কাছে।

অভিযোগে জানান, দলীয় গোষ্ঠীকোন্দলের জেরে দুর্গাপুর স্টিল প্ল্যান্ট থেকে কাজ হারিয়েছেন প্রায় সাড়ে চার হাজার কর্মী। দলের এক গোষ্ঠী তাঁদের কারখানায় ঢুকতে বাধা দিচ্ছে। তাঁদের পরিবর্তে অন্য জেলা থেকে লোক নিয়ে এসে ঠিকা শ্রমিকের কাজ করানো হচ্ছে। এটা জানিয়েই বিক্ষোভে ফেটে পড়েন কর্মীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্যে সমস্যার বিহিত করার আশ্বাস দেন তৃণমূল জেলা নেতৃত্ব।

দলীয় সূত্রের খবর থেকে জানা গিয়েছে, দুর্গাপুর পুরসভার ক্ষুব্ধ কাউন্সিলারদের অসন্তোষ কমাতেই জেলা সভাপতি বৈঠকের আয়োজন করেছিলেন। পুরসভার জল বিভাগের ১৮ জন কর্মী নিয়োগ নিয়েই এই বিদ্রোহ তাঁদের। প্রায় ৩২ জন কাউন্সিলরকে কিছু না জানিয়েই ওই ১৮ জনকে জল বিভাগের কাজে নিয়োগ করা হচ্ছে। এভাবে চলতে পারে না। সকলের মতামত নিয়েই কর্মী নিয়োগ করতে হবে, এমনটাই দাবী বিক্ষুব্ধদের।

তবে এ অভিযোগ মানতে নারাজ পুর কর্তৃপক্ষ। তাঁদের বক্তব্য, নিয়ম মেনেই পুরানো ১৮ জন কর্মীকে নিয়োগ করা হয়েছে। কোনোরকম অনিয়ম হয়নি। যাদের নেওয়া হয়েছে ওঁরা আগে থেকেই পুরসভায় কাজ করতেন। শুধুমাত্র দলকে সমস্যায় ফেলতে কয়েকজন কাউন্সিলর ইচ্ছাকৃতভাবে অশান্তি করছেন। এই সমস্যার সমাধানসূত্র বার করতেই বিক্ষুব্ধ কাউন্সিলরদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন জেলা সভাপতি। কিন্তু সমস্যা সমাধানের বদলে পরিস্থিতি বিগড়ে যায় আরো। ডিএসপি’র বহিষ্কৃত কিছু শ্রমিকরা বৈঠকের মধ্যে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন।

এদিকে কর্মী নিয়োগ নিয়ে মেয়র যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাতে সবুজ সংকেত দিয়েছে রাজ্যনেতৃত্বও। তাই সিদ্ধান্ত নিয়ে পিছু হটতে চাইছে না পুরসভা। এ প্রসঙ্গে জেলা সভাপতি ভি শিবদাসন দাসু বলেছেন, মেয়রের সিদ্ধান্তেই কাজ করবে পুরসভা। তবে ডিএসপি’র কিছু কর্মী তাঁদের সমস্যার কথা জেলা সভাপতিকে জানিয়েছে সেগুলো বিচার বিবেচনা করে দেখা হচ্ছে বলেই জানান তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

পাশাপাশি আরো জানান, চলতি মাসেই দলের রাজ্য যুব সভাপতির গলসিতে আসার কথা রয়েছে। তাঁর সভা নিয়েও আলোচনা হয়েছে বৈঠকে। বিদ্রোহী কাউন্সিলরদের নিয়ে যথেষ্ট চাপে রয়েছে এই মুহূর্তে জেলা তৃণমূল নেতৃত্বরা। অবিলম্বে সমস্যার সমাধান না করা গেলে পরিস্থিতি আরো জটিল হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। এরপর যদি বিক্ষুব্ধরা আন্দোলনকে হাতিয়ার করে শাসকদলের বিরুদ্ধে পথে নামে, তাহলে তা আবার নতুন সমস্যার সৃষ্টি করবে। এমনটাই আশঙ্কা জোড়াফুল শিবিরের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!