এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ২৫ শের মধ্যে ‘রক্ষাকবচ’ না পেলে কি রাজীব কুমারের ঠিকানা ভুবনেশ্বর? ক্রমশ বাড়ছে জল্পনা

২৫ শের মধ্যে ‘রক্ষাকবচ’ না পেলে কি রাজীব কুমারের ঠিকানা ভুবনেশ্বর? ক্রমশ বাড়ছে জল্পনা

রাজীব কুমারকে নিয়ে জল্পনার অন্ত নেই! বিশেষ করে গতকাল আলিপুর আদালতে রাজীব কুমারের আগাম জামিনের আর্জি খারিজ হয়ে যেতেই – জল্পনা আরও তীব্র হয়। এদিকে সিবিআইও কোমর বেঁধে আদালতে জানাচ্ছে, আগাম জামিন তো দূরের কথা, তদন্তকে প্রভাবিত হওয়ার হাত থেকে বাঁচাতে জামিন অযোগ্য ধারায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হোক রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে! একই সঙ্গে গোটা কলকাতা ও আশেপাশের এলাকা তো বটেই – সুদূর উত্তরপ্রদেশে রাজীব কুমারের বাড়িতেও চলছে সিবিআইয়ের খানা তল্লাশি।

ফলে, গতকাল আলিপুর আদালতের সিদ্ধান্তের পরেই, রাতের দিকে জল্পনা তীব্র হতে থাকে যে – এবার, ‘আত্মসমর্পন’ করতে পারেন রাজীব কুমার। কিন্তু, কিছুক্ষনের মধ্যেই স্পষ্ট হয়ে যায় – রাজীব কুমার বা তার আইনজীবীরা এখনই হাল ছাড়তে নারাজ। শেষ চেষ্টা হিসাবে, রাজীব কুমারের আইনজীবীরা আগামীকাল কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন করতে পারেন। কিন্তু, কলকাতা হাইকোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চই রাজীব কুমারের রক্ষাকবচ কেড়ে নেয় – তাই, সেখানে রাজীব কুমারের লড়াইটা সহজ হবে না।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

কিন্তু, আইনি মহলের ধারণা, কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের যে রায়ই হোক না কেন, মামলা গড়াবে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত। রাজীব কুমার বা সিবিআই – যে পক্ষই হারুন না কেন, দেশের সর্বোচ্চ আদালতের দরজায় কড়া নাড়বেনই। কিন্তু, সেসবের জন্য রাজীব কুমার শিবিরের হাতে রয়েছে মাত্র ৩ দিন। কেননা, রাজীব কুমারের রক্ষাকবচ কেড়ে নেওয়ার পর যখন সিবিআইয়ের তরফে তাঁকে নোটিশ দেওয়া হয়, তখন তিনি জানান যে ১৭ দিনের ছুটিতে আছেন, ২৫ তারিখের পর তিনি দেখা করতে পারবেন। এমনকি, রাজীব কুমারের আইনজীবীরা – আদালতে এই পয়েন্ট তুলেই সিবিআইয়ের বিরোধিতা করছেন।

অর্থাৎ, ২৫ তারিখের মধ্যে যদি রাজীব কুমার রক্ষাকবচ জোগাড় করতে না পারেন সেক্ষেত্রে সিবিআইয়ের সামনে তাঁকে এমনিতেই আসতে হবে। বিশেষ করে এইরকম সংবেদনশীল মামলায় আবারো সময় চেয়ে সিবিআইকে নোটিশ পাঠালে, তিনি আরও আইনি জালে জড়িয়ে যেতে পারেন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট মহল। এদিকে, সূত্রের খবর – রাজীব কুমারকে গ্রেপ্তার ও তার পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে সিবিআই নিজের ছক তৈরিই রেখেছে। রাজীব কুমারকে পেলে হয়ত সারদা নয়, গ্রেপ্তার করা হতে পারে রোজভ্যালি কাণ্ডে। কেননা, রাজীব কুমারকে জেরা করতে যেতেই, যেভাবে পুলিশ দিয়ে সিবিআই আধিকারিকদের হেনস্থা করা হয়েছিল, তাতে গ্রেপ্তারের পর রাজীব কুমারকে বাংলায় রাখার ঝুঁকি নিতে নারাজ সিবিআই।

ফলে, জল্পনা বেড়েছে, যদি রোজভ্যালি কাণ্ডে গ্রেপ্তার দেখানো যায়, সেক্ষেত্রে তাঁকে সোজা ভুবনেশ্বর নিয়ে যাওয়া যাবে। আর সেক্ষেত্রে, রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে যদি কোনওরকম আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর চেষ্টা হয় – তাহলে সেখানে সিবিআইয়ের তদন্তকারী অফিসাররা সহজেই ঝুঁকি এড়াতে পারবেন। ফলে, সবমিলিয়ে রাজীব কুমার কি ২৫ তারিখের পরে ভুবনেশ্বরে যাবেন নাকি, তিনি সব বাধা কাটিয়ে এর মধ্যে ঠিক রক্ষাকবচ জোগাড় করে নেবেন – সেদিকেই নজর সকলের। বিশেষ করে কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে কি হয় – আগামীকাল সেদিকেই তাকিয়ে থাকবে গোটা বাংলা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!