এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > এবার কি তৃণমূলে উত্তরবঙ্গের দাপুটে কংগ্রেস নেতা? জল্পনা চরমে

এবার কি তৃণমূলে উত্তরবঙ্গের দাপুটে কংগ্রেস নেতা? জল্পনা চরমে

আজ থেকে আলিপুরদুয়ার প্যারেড গ্রাউন্ড ময়দানে শুরু হতে চলেছে ১৪ তম ডুয়ার্স উৎসব। সেখানে উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে পূর্তমন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ, পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব, বনমন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বর্মন, আদিবাসী উন্নয়নমন্ত্রী জেমস কুজুর, পর্যটন দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী গোলাম রব্বানী সহ রাজ্যের একঝাঁক মন্ত্রীর নাম ছাপানো হয়েছে। কিন্তু তাৎপর্যপূর্ণভাবে রাজ্যের প্রথমশ্রেণীর মন্ত্রীদের সঙ্গেই সেখানে আমন্ত্রণ পেলেন প্রাক্তন কংগ্রেস বিধায়ক দেবপ্রসাদ রায়। আর যা নিয়ে পঞ্চায়েত ভোটের আগে রাজনৈতিক মহলে তীব্র জল্পনা ছড়িয়েছে। তাহলে কি এবার ‘চিরকালই তৃণমূলের শুভাকাঙ্খী’ হিসাবে পরিচিত দেবপ্রসাদবাবু সরাসরি যোগ দিতে চলেছেন রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসে? অথবা রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস পরোক্ষভাবে পঞ্চায়েত ভোটে কাজে লাগাতে পারে তাঁকে?
প্রসঙ্গত, কংগ্রেসের সর্বভারতীয় নেতা এই দেবপ্রসাদবাবুই ২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনের আগে কংগ্রেস-সিপিএম জোটের তীব্র বিরোধিতা করেছিলেন, এমনকি জোটের বিরোধিতা করে তিনি চিঠি লিখেছিলেন স্বয়ং সোনিয়া গান্ধীকে। এছাড়া জোটের বিরোধিতা করে তিনি বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতেও রাজি হন নি। তাছাড়া তিনি ভবিষ্যৎবাণী করেছিলেন রাজ্যে বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের করা জোটের কোনও ভবিষ্যৎ নেই। আর সেই পরিপ্রেক্ষিতে এবার রাজ্যের শাসকদলের মন্ত্রীদের সঙ্গে একাসনে বসার জন্য তিনি আমন্ত্রণ পেতেই নতুন করে জল্পনা ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে।
আর এই ব্যাপারে খোদ দেবপ্রসাদ রায় যা বলেছেন তাও যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে ধারণা রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। দেবপ্রসাদ বাবুর বক্তব্য, নিজের প্রাসঙ্গিকতা এখনও হারাইনি। আলিপুরদুয়ারের কোনও অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পেলে এখনও যাই। আমি বিধানসভা ভোটে ভবিষ্যৎবাণী করেছিলাম রাজ্যে সিপিএম-কংগ্রেস জোটের কোনও ভবিষ্যৎ নেই। ভোটের পরে আমার ভবিষ্যৎবাণী মিলে গিয়েছিল। আর এখন এই ইস্যুটার প্রাসঙ্গিকতা নেই। আমার ডুয়ার্স উৎসবে যাওয়ার সঙ্গে পঞ্চায়েত ভোটের কোনও সম্পর্ক নেই। তবে ভবিষ্যতে কী হবে সেটা এখনই বলা সম্ভব নয়, সেটা সময়ই বলবে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!