এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > হাইকম্যান্ডের ইঙ্গিত তৃণমূলের সঙ্গে জোট, রাজ্যে চিন্তা বাড়ছে অধীর-মান্নানদের

হাইকম্যান্ডের ইঙ্গিত তৃণমূলের সঙ্গে জোট, রাজ্যে চিন্তা বাড়ছে অধীর-মান্নানদের

শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে নির্দেশ পেয়ে প্রদেশ কংগ্রেস এখন ‘ধীরে চলো’ নীতি নিল। হাইকম্যাণ্ডের কাছে আদেশ পেয়ে প্রদেশ কংগ্রেস আসন্ন পুরসভা নির্বাচনে সরাসরি বাম শিবিরের সাথে আসন সমঝোতা করার কোনো ইচ্ছা প্রকাশ করছে না বলে সূত্রের খবর। তবে পুরসভা নির্বাচনে আদৌ বামেদের সাথে কোন প্রকার আসন সমঝোতা হবে কী না সেটা ঠিক করার দায়িত্ব সম্পূর্ণ ভাবেই সংশ্লিষ্ট এলাকার স্থানীয় নেতাদের হাতে তুলে দেওয়া হলো বলেও জানা গেছে।

প্রসঙ্গত চলতি বছরের শেষ দিকে অর্থাৎ সেপ্টেম্বর-নভেম্বর মাস করে রাজ্যের ১৭ টি পুরসভায় নির্বাচন রয়েছে। পুরসভাগুলি হলো যথাক্রমে – কোচবিহারের মেখলিগঞ্জ ও হলদিবাড়ি, আলিপুরদুয়ার জেলার আলিপুরদুয়ার, উত্তর দিনাজপুরের ডালখোলা, দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট, মুর্শিদাবাদের বহরমপুর, নদিয়ার কৃষ্ণনগর ও চাকদহ, উত্তর ২৪ পরগনার পানিহাটি ও হাবড়া, দক্ষিণ ২৪ পরগনার ডায়মন্ড হারবার, পশ্চিম মেদিনীপুরের মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম জেলার ঝাড়গ্রাম, পূর্ব বর্ধমানের বর্ধমান ও গুসকরা, বীরভূমের দুবরাজপুর এবং হাওড়া জেলার হাওড়া পুরসভা।

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

প্রসঙ্গত, বিগত কয়েকটি পুর নির্বাচনে প্রদেশ কংগ্রেস চেয়েছিলো সিপিএমের সাথে জোট গঠন করতে কিন্তু শেষ অবধি নানা কারণে তা হয়ে ওঠেনি। তাই এই বছরের পুর নির্বাচনে বামেদের সাথে জোট গঠনের বিষয়ে দলের জাতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধীর কাছে আর্জি জানিয়েছিলেন প্রদেশ কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ। এদিকে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী, দলের বর্ষীয়ান নেতা ওমপ্রকাশ মিশ্রকে রাজ্যে বাম শিবিরের সাথে জোটের বিষয়টি দেখার জন্যে দায়িত্ব দিয়েছিলেন।

পুর নির্বাচনে সিপিএমের সাথে জোটের সম্ভবনা কতটা সে বিষয়ে ওমপ্রকাশ মিশ্রকে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে সরাসরি জবাব না দিয়ে কিছুটা হালকা চালেই তিনি বলেন, “এব্যাপারে আমরা কিছু বলতে পারব না, এটা পুরোটাই স্থানীয় নেতাদের বিষয়। ওরাই ঠিক করবে জোট হবে কি হবে না”। যদিও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সিপিএম নেতা এই একই প্রসঙ্গে জানান, “কংগ্রেসের সঙ্গে জোট নিয়ে আমাদের দলে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। আর ওদের হাতে তো কিছু নেই। কংগ্রেস হাইকম্যান্ড যা ঠিক করবে সেটাই অধীরবাবু, ওমপ্রকাশবাবুদের মেনে নিতে হবে”।

আর এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠেছে, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে জাতীয় রানীতিতে বিজেপিকে হঠাতে বড়সড় উদ্যোগ নিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তিনি ঘোষিত বাম-বিরোধী, তাই কি কংগ্রেস হাইকম্যান্ড চাইছেন বামেদের সঙ্গে নিরাপদ দূরত্ত্ব রেখে তৃণমূলের হাত ধরতে? অন্যদিকে অধীর চৌধুরী বা আব্দুল মান্নান ঘোষিত মমতা-বিরোধী। লোকসভা ভোট যদি তৃণমূলের সঙ্গে জোট হয়, তাহলে দলে ভাঙন আরো অবশ্যম্ভাবী – সেক্ষেত্রেই বা তাঁরা দলীয় সংগঠন কিভাবে বাঁচিয়ে রাখবেন?সবমিলিয়ে কংগ্রেসের এই নতুন পদক্ষেপে নতুন জল্পনার সৃষ্টি হল বঙ্গ রাজনীতিতে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!